01282021বৃহঃ
মঙ্গলবার, 22 ডিসেম্বর 2020 16:29

বিশ্বের শীতলতম ৬ টি স্থান, যেখানে বরফ গলিয়ে পানি পান করে

নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক: নয়া দিল্লিতে পারদ ১৫ থেকে ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে আসে তখন লোকেরা প্রচণ্ড ঠাণ্ডা পড়ছে বলে কাঁপতে শুরু করে। ৩-৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস মানে তো ঠাণ্ডায় একেবারে জুবুথুবু অবস্থা। পৃথিবীতে এমন অনেক জায়গা রয়েছে যেখানে বরফ গলিয়ে জল পান করে সাধারণ মানুষ। তবুও এসব জায়গায় মানুষ থাকে, প্রতিপদে কঠিন লড়াই করে তাঁরা টিকে থাকেন। উলানবাটার মঙ্গোলিয়া – মঙ্গোলিয়ার রাজধানী উলানবাটার বিশ্বের অন্যতম শীতল অঞ্চল। এখানকার তাপমাত্রা কখনও -১৬° ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি হয় না। মঙ্গোলিয়ার প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা উলানবাটারে বাস করে। এখানকার বিখ্যাত ধর্মীয় স্থান এবং যাদুঘর দেখতে পর্যটকরা দূর-দূরান্ত থেকে আসেন। ভোস্তক স্টেশন, আন্টার্কটিকা – রাশিয়ার এই রিসার্চ সেন্টার অ্যান্টার্কটিকায় অবস্থিত। এটি বিশ্বের অন্যতম শীতল স্থান। ১৯৮৩ সালের ২১ জুলাই এখানকার তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৮৯.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এমনকি গ্রীষ্মের মরসুমেও এখানকার পরিস্থিতির তেমন কোনও পরিবর্তন হয় না। গরমে এখানকার তাপমাত্রা মোটামুটি মাইনাস ৩২ ডিগ্রি থাকে। মাউন্ট ডেনালি, আলাস্কা – সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬,১৯০ মিটার উপরে মাউন্ট ডেনালি উত্তর আমেরিকার সর্বোচ্চ পর্বত। ২০০৩ সালে এখানে তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৮৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই পর্বতের চূড়া সারাবছর বরফে ঢাকা থাকে। ভারাখোয়ানস্ক, রাশিয়া – উত্তর রাশিয়ার অন্যতম শীতল স্থান ভারখোয়ানস্ক। জানুয়ারিতে এখানে গড় তাপমাত্রা থাকে মাইনাস ৪৮ ° সে। অক্টোবর থেকে এপ্রিলের মধ্যে এখানকার তাপমাত্রা শূন্যের নীচে থাকে। মিনেসোটা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র- মিনেসোটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শীতলতম স্থান। এই জায়গা ইতিমধ্যে আইস বক্স অফ দ্য নেশনের খেতাবও জিতেছে। স্ন্যাগ, ইউকন (কানাডা) – উত্তর আমেরিকার একটি ছোট্ট গ্রাম স্ন্যাগ শীতলতার জন্য বিখ্যাত। ১৯৪৭ সালে এখানে তাপমাত্রা নেমেছিল মাইনাস ৬৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। ইউকনে কানাডার সবচেয়ে কম সংখ্যক লোক থাকে। এখানে মাত্র ৩৬,০০০ মানুষ থাকে।
পড়া হয়েছে 46 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: মঙ্গলবার, 22 ডিসেম্বর 2020 16:37