10022022রবি
শিরোনাম:
গোফরান পলাশ, কলাপাড়া: কুয়াকাটায় নানা আয়োজনে উদযাপিত হয়েছে বিশ্ব পর্যটন দিবস। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে দশটায় পর্যটন হলিডে হোমস চত্ত্বর থেকে একটি বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাপাত্রাটি পৌর শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে সী-বিচ সংলগ্ন পর্যটন পার্কের সম্মুখ্যে শেষ হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন, কলাপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম রাকিবুল আহসান, কলাপাড়া পৌর মেয়র বিপুলচন্দ্র হাওলাদার ও কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার। শোভাযাত্রায় কুয়াকাটায় আগত পর্যটকসহ স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতি সংগঠন অংশগ্রহন করে। দুপুরে পর্যটকদের অংশগ্রহনে হাডুডু খেলা এবং সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জেলা প্রশাসন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক কামাল হোসেন বলেন, কুয়াকাটাকে একটি আন্তর্জাতিক মানের পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে পরিনত করতে ইতোমধ্যে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। আগামী ১বছরের মধ্যে কুয়াকাটায় একটি বড় ধরনের পরিবর্তন আসবে বলে জানান তিনি।
সোমবার, 26 সেপ্টেম্বর 2022 20:10

বিশ্ব পর্যটন দিবস আগামীকাল

নিউজফ্ল্যাশ প্রতিবেদক : আগামীকাল বিশ্ব পর্যটন দিবস। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আগামীকাল দিবসটি পালিত হবে। পর্যটনের ভূমিকা সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিসহ সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক উপযোগিতাকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেয়া এ দিবসের লক্ষ্য। জাতিসংঘের বিশ্ব পর্যটন সংস্থার (ইউএনডব্লিউটিও) উদ্যোগে ১৯৮০ সাল থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর দিবসটি পালন করা হয়। চলতি বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো-‘পর্যটনে নতুন ভাবনা’। প্রতিবছরের মতো এবারও বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডসহ বিভিন্ন পর্যটন সংস্থা দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। এদিকে বিশ্ব পর্যটন দিবস-২০২২ উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৭ টায় এক র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও সকাল ৮ টায় বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনা সভা আগারগাঁওস্থ পর্যটন ভবনের শৈলপ্রপাত মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।
নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ জাতিসংঘ সদর দপ্তরে পদ্মা সেতুর ওপর আলোকচিত্র প্রদর্শনী পরিদর্শন করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেসসচিব কে এম সাখাওয়াত মুন জানান, আজ বিকেলে জাতিসংঘ সদর দপ্তরের লেভেল-১ এর আঁকাবাঁকা দেয়ালে আয়োজিত প্রদর্শনী পরিদর্শন করেন তিনি। মুন জানান, প্রধানমন্ত্রীর পরিদর্শনের জাতিসংঘের ইকোসক প্রেসিডেন্ট লাচেজারা স্টোভাসহ কয়েকজন বিদেশী অতিথি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী বিদেশি অতিথিদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছি, কারণ, এটি নির্মাণ করা আমাদের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ ছিল। বিশ্বব্যাংক দুর্নীতির অভিযোগ এনে আমাদের দোষারোপ করার চেষ্টা করেছিল, কিন্তু পরে প্রমাণিত হয়েছে যে কোনো দুর্নীতি হয়নি।’ পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, অ্যাম্বাসেডর-অ্যাট-লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, সিনিয়র পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব মো. তোফাজ্জেল হোসেন মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।১৯ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া এই প্রদর্শনীটি ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে।
কলাপাড়া প্রতিনিধি : কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে গোসলে নেমে সবুজ (২৭) নামের এক পর্যটক নিখোঁজ হয়েছে। সোমবার দুপুর দুইটার দিকে সৈকতের জিরো পয়েন্ট থেকে তিনি নিখোঁজ হন। সবুজের বাড়ি শরিয়তপুর জেলার শাহজাহানপুর এলাকায়। সে আইটেল মোবাইল কোম্পানিতে কর্মরত ছিলো। বর্তমানে তাকে উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ও ট্যুরিষ্ট পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আইটেল কোম্পানিতে কর্মরত ৫৫ জনের একটি গ্রুপ বগুরা থেকে আজ সকালে কুয়াকাটায় ঘুরতে আসেন। পরে তারা হোটেল সী-ভিউতে ওঠেন। দুপুর দুইটার দিকে তাদের মধ্যে তিন সহকর্মী সবুজ, আসিফ ও অলীদ সৈকতে গোসলে নামেন। এসময় ঢেউয়ের তোড়ে তারা তিন জনই সাগরের মধ্যে চলে যায়। পরে স্থানীয় ওয়াটার বাইক চালকরা দুই জনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও সাঁতার না জানায় নিখোঁজ হয় সুবজ। কলাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. ইলিয়াস জানান, বর্তমানে আমাদের একটি টিম উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। ইতিমধ্যে আমাদের ডুবুরী দল খবর দেয়া হয়েছে। তারা পটুয়াখালী থেকে রওয়ানা দিয়েছে। কুয়াকাট ট্যুরিষ্ট পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল খালেক জানান, নিখোঁজ পর্যটক উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের পাশাপাশি ট্যুরিষ্ট পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। এর আগে গতকাল দুপুর একটার দিকে একই স্থানে পারভেজ নামের আরও এক পর্যটক নিখোঁজ হয়। এরপর তিন ঘন্টা পর তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
গোফরান পলাশ, কলাপাড়া: কুয়াকাটা সৈকতে এই প্রথমবার পরীক্ষামূলক ভাবে উড়ানো হলো প্যারাসুট। আর এ প্যারাসেলিং এক নজর দেখতে ভিড় জমিয়েছে হাজারো পর্যটক। সৈকতে বিনোদনের জন্য এটি বানিজ্যিক ভাবে উড়াতে অনুমতির অপেক্ষায় আছে সী-বিচ ট্যুরিজম কর্তৃপক্ষ। গত দুই-তিন দিন ষেকতে বেশ কয়েকবার পরীক্ষামূলকভাবে এটি উড়িয়েছেন সী-বিচ ট্যুরিজমের মালিক লিটন খান। তবে প্রশাসনের অনুমতি না থাকায় কোন পর্যটক উঠানো হয়নি এ প্যারাসুটে। সী-বিচ ট্যুরিজমের লিটন জানান, গত চার বছরের অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি কুয়াকাটা সৈকতে পর্যটকদের বাড়তি বিনোদনের জন্য এই প্যারাসিলিং এর অনুমতি পাওয়ার চেষ্টা করছেন। জেলা প্রশাসন কর্তৃক অনুমতি পেলে তিনি পর্যটকদের প্যারাসিলিং এর বিনোদন দিতে পারবেন। তিনি আরও জানান, প্যারাসুট সচরাচর দেখা যায়না। এটি মূলত আত্মরক্ষার জন্য বিমানে রাখা হয়। আবার পর্যটকদের মনোরঞ্জনের জন্য এটি বিভিন্ন পর্যটন স্পটে উড়ানো হয়। তিনি কৃয়াকাটা সৈকতে পরীক্ষামূলক ভাবে যখন এটি উড়ান তখন অনেক পর্যটক প্যারাসুটে উঠে সৈকতের সৌন্দর্য উপভোগ করতে চান । ঢাকার গুলশান থেকে থেকে আসা পর্যটক মো: কবির হোসেন জানান, কুয়াকাটা সৈকতে দাড়িয়ে দেখলাম পাখির মতো কোন বস্তু আকাশে উড়ছে। পরে দেখলাম স্পীড বোটের সাহায্যে প্যারাসুটের মাধ্যমে প্যারাসেলিং করছে। ইচ্ছে হলো নিজেও করি। কিন্তু উঠতে পারলাম না। সী-বিচ ট্যুরিজম কর্তৃপক্ষ জানায়, এ প্যারাসুট উড়াতে আমরা এখানে একটি স্পীড বোট কিনেছি। নিরাপত্তার জন্য একটি ওয়াটার বাইক ব্যবহার করা ও দক্ষ চালক নিয়োগ সহ সার্বিক ব্যবস্থা ইতোমধ্যে নেয়া হয়েছে। অনুমতির জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করা হয়েছে। অনুমতি পেলে কুয়াকাটা সৈকতে সবসময়ই প্যারাসেলিং করা হবে। কুয়াকাটা ট্যুরিষ্ট পুলিশ জোনের সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল খালেক জানান, প্যারাসুট মূলত পর্যটক আকর্ষনের অন্যতম কেন্দ্র বিন্দু। পর্যটকদের বিনোদনের জন্য বীচে উড়ানো সম্ভব কিনা। পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে, এসব দিক বিবেচনা করে বিষয়টি নিয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গেআলোচনা করা হবে। জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন জানান, কুয়াকাটা সৈকতে প্যারাসেলিং করানো যাবে কিনা, সেবিষয়ে পর্যটকদের নিরাপত্তা ও সাশ্রয়ের কথা বিবেচনা করে অনুমতির বিষয় পরে জানানো হবে।
নিউজফ্ল্যাশ প্রতিবেদক: ঢাকা-টরন্টো রুটে বিমানের ফ্লাইট চালু কাল, থামবে ইস্তাম্বুলে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ঢাকা-টরন্টো ফ্লাইট অবশেষে চালু হচ্ছে। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর আগামীকাল (বুধবার) থেকে ফ্লাইট পরিচালিত হবে।বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজের মাধ্যমে এ রুটে ফ্লাইট চালাবে বিমান। মঙ্গলবার বিমান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে। বুধবার ভোর সাড়ে ৩টায় বিজি ৩০৫ ফ্লাইটটি ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে টরন্টোর উদ্দেশে যাত্রা করবে। ফ্লাইট সরাসরি টরন্টোতে যাওয়ার কথা থাকলেও এখন তুরস্কের ইস্তাম্বুলে ১ ঘণ্টা যাত্রাবিরতি দেবে বলে জানিয়েছে বিমান। সেখানে উড়োজাহাজের জ্বালানি নেওয়া হবে। সে সময় যাত্রীদের উড়োজাহাজেই থাকতে হবে।তবে টরন্টো থেকে ফেরার সময় ফ্লাইটটি সরাসরি ঢাকা আসবে। বিমান জানিয়েছে, ঢাকা-টরন্টো রুটে সপ্তাহে দুটি ফ্লাইট পরিচালিত হবে। ঢাকা-টরন্টো-ঢাকা রুটে ইকোনমি ক্লাসে রিটার্ন ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা।সপ্তাহে প্রতি বুধবার বিজি ৩০৫ বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৩টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে টরন্টোর উদ্দেশে যাত্রা করবে। যাত্রাপথে ফ্লাইটটি রিফুয়েলিংয়ের জন্য স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবতরণ করবে। সেখানে ১ ঘণ্টা বিরতি শেষে ইস্তাম্বুল থেকে রওনা হয়ে স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৫৫ মিনিটে ফ্লাইটটি টরন্টো পৌঁছাবে। বিজ্ঞপ্তিতে বিমান জানায়, আগামী রোববার বিজি ৩০৫ ঢাকা থেকে ভোর সাড়ে ৩টায় যাত্রা করে রিফুয়েলিংয়ের জন্য স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টায় তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবতরণ করবে। সেখানে ১ ঘণ্টা বিরতি শেষে ইস্তাম্বুল থেকে রওনা দিয়ে স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ২৫ মিনিটে ফ্লাইটটি টরন্টো পৌঁছাবে। বিমান জানায়, প্রতি বুধবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বিজি ৩০৬ টরন্টো থেকে ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করবে। যাত্রাবিরতি ছাড়াই ফ্লাইটটি একটানা ১৬ ঘণ্টা উড়ে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৯টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে।আর প্রতি রোববার টরন্টো থেকে স্থানীয় সময় রাত ৯টায় উড্ডয়ন করে সরাসরি ঢাকায় পৌঁছাবে সোমবার স্থানীয় সময় রাত ১১টায়।
গোফরান পলাশ, কলাপাড়া: পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর থেকে ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে একই স্থানে দাড়িয়ে সূর্যোদয়, সূর্যাস্তের দৃশ্য অবলোকনে কুয়াকাটায় ছুঁটে আসছেন পর্যটকরা। ঈদ-উল-আযহার সরকারী ছুটির পর থেকে কুয়াকাটার হোটেল-মোটেল গুলোতে কোন সিট খালি থাকছেনা। আজ শুক্রবার রেকর্ড সংখ্যক পর্যটক এসেছেন কুয়াকাটায়। কুয়াকাটার দর্শনীয় স্থান সহ সমুদ্র সৈকত এলাকা পর্যটকে পরিপূর্ন হয়ে উঠেছে। এতে পর্যটন খাতের বিনিয়োগকারী সহ ব্যবসায়ীরা ঘুরে দাড়াতে শুরু করেছেন বিপুল সংখ্যক পর্যটকদের নিরাপত্তা বিধানে ব্যস্ততা বেড়েছে ট্যুরিষ্ট পুলিশ সহ থানা পুলিশ সদস্যদের। পর্যটক সেবায় নতুন করে হোটেল মোটেল নির্মান শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা। শুক্রবার সকাল থেকে রোদ বৃষ্টির লুকোচুরির মধ্যে সৈকতে গোসলে নেমেছেন হাজার হাজার পর্যটক। ।ঈদ-উল-আযহার সরকারী ছুটির শুরু থেকেই পর্যটকের ঢল নামে কুয়াকাটায়। বিপুল সংখ্যক পর্যটকের আগমনে রুম বুকিং না দিয়ে আসা পর্যটকরা অতিরিক্ত ভাড়ায়ও রুম না পেয়ে গাড়ীর ভেতর রাত কাটানো কিংবা ফিরে যাওয়ার মত বিড়ম্বনায়ও পড়েছেন। আগত পর্যটকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, পদ্মা সেতু হয়ে কুয়াকাটা ভ্রমন এখন অতি সহজ এবং আনন্দদায়ক। যে কারনে পর্যটকরা এই সৈকতে ভ্রমনের জন্য এসেছেন। হোটেল মোটেল সূত্র জানায়, গত চারদিন পর্যন্ত কুয়াকাটার হোটেল মোটেল গুলোতে শতভাগ বুকিং রয়েছে। তাই আগত পর্যটকরা যদি অগ্রীম হোটেলের রুম বুকিং না করে আসে তাহলে তাদের ভোগান্তিতে পড়তে হবে। পদ্মা সেতু খুলে দেয়ার পর লাভবান হতে শুরু করেছে হোটেল মোটেল মালিকরা। এতে করোনাকালীন সময়ের লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারবেন তারা। কুয়াকাটা ট্যুরিজম ম্যানেজমেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লব জানান, কুয়াকাটায় এখন থেকে পর্যটকদের এমন উপস্থিতি অব্যাহত থাকবে। পর্যটকদের জন্য বিনোদনের স্থান বৃদ্ধি ও উন্নতমানের স্থাপনা তৈরিতে ঝুঁকছে বিনিয়োগকারীরা। ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোন’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ জানান, অতিরিক্ত পর্যটক হওয়ায় আমরা ট্যুরিস্ট পুলিশ, থানা পুলিশ সহ ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা কয়েকটি ভাগে ভাগ হয়ে কাজ করছি। যাতে পর্যটকদের সর্বোচ্চ সেবা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়।
গোফরান পলাশ, কলাপাড়া: পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর কুয়াকাটায় এবারই প্রথম ঈদ-উল-আযহার সরকারী ছুটিতে ধারন ক্ষমতার অতিরিক্ত পর্যটকের উপস্থিতি দেখা গেছে। ঈদের ২য় ও ৩য় দিন থেকে পরিস্থিতি এমন হয়েছে হোটেল মোটেল গুলোতে রাত্রি যাপনের জন্য কোন রুম ফাঁকা ছিলনা। এতে পর্যটন খাতের বিনিযোগকারীদের মধ্যে নতুন করে আলোর সঞ্চার করেছে। পর্যটকের এমন উপস্থিতিতে তারা নতুন নতুন হোটেল মোটেল নির্মান কাজ শুরু করেছেন। যাতে আগামী পর্যটন মৌসুমে কোন পর্যটককে কুয়াকাটা বেড়াতে এসে গাড়ীর ভেতর রাত কাটাতে না হয়। এদিকে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে প্রতিনিয়ত পর্যটকদের আনাগোনা বেড়েই চলছে। যে কারনে অগ্রীম বুকিং হয়েছে সকল হোটেল-মোটেলগুলো। বুধবার ও আজ বৃহস্পতিবার কুয়াকাটায় ব্যাপক পর্যটকের উপস্থিতি দেখা গেছে। তবে এদের বেশীরভাগকেই অতিরিক্ত ভাড়া কিংবা কোথাও রুম না পাওয়ায় বিড়ম্বনায় পড়তে হয়েছে। এতে কুয়াকাটায় আসার আগে অগ্রীম রুম বুকিং দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ট্যুর অপারেটরস এসোসিয়েশন অব কুয়াকাটা (টোয়াক) সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু। আনু জানান, ঈদের প্রথম ও দ্বিতীয় দিন পর্যটকদের দেখা না মিললেও ১২ থেকে ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত বেশীরভাগ হোটেল রিসোর্ট অগ্রীম বুকিং হয়ে গেছে। তাই এই সময়ের মধ্যে কুয়াকাটা আসলে অবশ্যই অগ্রীম বুকিং দিয়ে আসার পরামর্শ থাকবে পর্যটকদের। তাহলে বিড়ম্বনার সম্ভাবনা থাকবে না। কুয়াকাটা হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সভাপতি মো: শাহআলম হাওলাদার জানান, পদ্মা সেতু খুলে দেয়ার পর থেকে কক্সবাজারের চেয়ে কুয়াকাটায় অল্প সময়ে পর্যটকরা পৌঁছে যেতে পারছেন। এতে হঠাৎ করে কুয়াকাটায় পর্যটকদের চাপ বেড়ে যাওয়ার কারনে বিপুল সংখ্যক পর্যটকের রাত্রি যাপন নিয়ে সমস্যা তৈরি হয়েছে। তবে বড় বড় বিনিয়োগকারীরা তাঁদের স্থাপনা তৈরিতে ব্যস্ত রয়েছেন। যাতে আগামী পর্যটন মৌসুমের আগে পর্যটকদের ধারন ক্ষমতা বর্তমানের চেয়ে দ্বিগুণ করা যায়, আমাদের সেই চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। কুয়াকাটা ট্যুর ম্যানেজমেন্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হোসাইন আমির জানান, কুয়াকাটায় যখন অতিরিক্ত পর্যটকের চাপ থাকে তখন কিছু অসাধু হোটেল ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত টাকায় রুম ভাড়া দেয়ার আসায় থাকে। এছাড়া কিছু অসাধু রেঁস্তোরা ব্যবসায়ী পর্যটকের কাছে মেয়াদ উত্তীর্ন খাদ্য দ্রব্য বিক্রী করায় ভোক্তা অধিকার আইনে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে। বুধবারও কুয়াকাটায় বেশ কয়েকজনকে আর্থিক দন্ড প্রদান করা হয়েছে। কুয়াকাটা ট্যুর গাইড এসোসিয়েশন সভাপতি কেএম বাচ্চু জানান, গত দুইদিন অনেক পর্যটক রুম না পেয়ে ফিরে গেছেন। আবার অনেকে সকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করে রুমের খোঁজে ছিলেন। কেউ কেউ আবার কাছাকাছি বাসাবাড়িতেও রাত কাটিয়েছেন। কুয়াকাটা ট্যুরিষ্ট পুলিশের পরিদর্শক হাসনাইন পারভেজ জানান, কুয়াকাটায় পর্যটকের নিরাপত্তা বিধানে ট্যুরিষ্ট পুলিশ নিয়োজিত রয়েছে। এছাড়া আইন শৃংখলা রক্ষায় মহিপুর থানা পুলিশের টিম কাজ করছে বলে জানিয়েছেন মহিপুর থানার ওসি আবুল খায়ের। কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র মো: আনোয়ার হোসেন হাওলাদার বলেন, ’কুয়াকাটায় পর্যটকের নিরাপত্তা নিশ্চিতে গোটা পর্যটন এলাকাকে সিসি টিভির আওতায় নিয়ে আসার জন্য পৌরসভার পক্ষ থেকে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কাজ শুরু করা হয়েছে। গত দু’দিন কুয়াকাটায় ব্যক্তিগত যান সহ বিপুল সংখ্যক পরিবহনের উপস্থিতির কারনে সড়কে যানজট সৃষ্টি হলে আমি সহ আমার পৌরসভার কর্মীরা ট্রাফিকের কাজ করেছি।’
নিউজফ্ল্যাশ প্রতিবেদক বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করেছে। ফ্লাইটটিতে ৭৪ জন যাত্রী ছিলেন। শুক্রবার দুপুর আড়াইটার দিকে ফ্লাইটটি নিরাপদে ঢাকায় অবতরণ করে। বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে, বরিশাল থেকে ড্যাশ ৮ কিউ-৪০০ মডেলের বিমানটি যাত্রী নিয়ে ঢাকায় আসার সময় কারিগরি ত্রুটির কারণে পাইলট জরুরি অবতরণ করতে চান। পরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফ্লাইটটি নিরাপদে অবতরণ করা হয়। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম বলেন, বরিশাল থেকে ঢাকাগামী বিমানের একটি ফ্লাইট জরুরি অবতরণ করেছে। আলহামদুলিল্লাহ, সব যাত্রীরা নিরাপদ ও অক্ষত আছেন। কোনো সমস্যা হয়নি। সূত্রে জানা গেছে, প্লেনটির ল্যান্ডিং গিয়ারে ত্রুটি ছিল। এ কারণে ফ্লাইটটি জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন পাইলট। প্লেনটি জরুরি অবতরণের পরই হার্ড ব্রেক করেন পাইলট। এতে বিমানটি কিছুটা পিছলে পড়ে। কিছুক্ষণ থেমে ধীরে ধীরে পার্কিংয়ে নেন পাইলট। এরপর নিরাপদে সব যাত্রীদের নামানো হয়। ফ্লাইটটি জরুরি অবতরণের সময় বিমানবন্দরে ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট প্রস্তুত ছিল। কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্সও প্রস্তুত রাখা হয়েছিল। তবে নিরাপদে ফ্লাইটটি অবতরণ করেছে, কোনো সমস্যা হয়নি। অবতরণের পর ল্যান্ডিং গিয়ার ‘আউট অব অর্ডার’ (বিকল) থাকায় প্লেনটি পুশকার্টের মাধ্যমে পার্কিং এলাকায় নেওয়া হয় বলে বিমান সূত্র জানিয়েছে।
নিউজফ্ল্যাশ প্রতিবেদক: বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স-এর একটি বোয়িং-৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার বিজি-৩৪০ বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সৌদি আরব-এর রিয়াদ থেকে উড্ডয়ন করে ১৬:১৫ টায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পর উড়োজাহাজটি ৪ নম্বর বোর্ডিং ব্রিজে আনা হয়। উড়োজাহাজটি থেকে যাত্রী, ব্যাগেজ ও কার্গো অফ-লোডিং সম্পন্ন হওয়ার পর যথারীতি হ্যাংগারে নেওয়ার সময় বোর্ডিং ব্রিজের ক্যানোপি বিমানের দোরগোড়ার সংযোগস্থলের সংস্পর্শ হতে বিচ্ছিন্ন হওয়ার সময় বোর্ডিং ব্রিজে থাকা ঘর্ষণ প্রতিরোধক রাবারের সাথে ঘর্ষণ লাগে। প্রকৌশলীগণ তাৎক্ষণিকভাবে জানান যে, বোর্ডিং ব্রিজের ঘর্ষণ প্রতিরোধক রাবারটি ঠিক করা হয়েছে, বিমানের কোন ক্ষতি হয়নি। পরবর্তীতে নির্ধারিত সিডিউল অনুযায়ী ১৭ জুন রাত ২টা ৩০ মিনিটে রিয়াদের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার জন্য উড়োজাহাজটি যাথারীতি সম্পূর্ণরূপে প্রস্তুত রয়েছে। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনের জন্য প্রধান প্রকৌশলী কায়সার জামান ও উপ-মহাব্যবস্থাপক, জিএসই মেইন্টেনেন্স এর সমন্বয়ে দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে আগামী ৩(তিন) কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত কার্য সম্পন্ন করে রিপোর্ট প্রদানের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এ বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

ফেসবুক-এ আমরা