12072021মঙ্গল
শনিবার, 16 জানুয়ারী 2021 15:35

ভারতে প্রথম ভ্যাকসিন পেলেন দিল্লি এইমসের সাফাইকর্মী

নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক: নয়াদিল্লি : কোনও নেতা বা মন্ত্রী নন, কোনও চিকিৎসক বা নার্স নন। দেশের প্রথম করোনা টিকা নেওয়ার সাক্ষী রইলেন একজন আম আদমী। দিল্লি এইমস হাসপাতালের সাফাই কর্মী মণীশ কুমার পেলেন দেশের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন, যা জিতিয়ে দিল দেশের সাধারণ মানুষকেই। মণীশ কুমার যখন এইমসে করোনা টিকা নিচ্ছেন, তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডঃ হর্ষ বর্ধন। ছিলেন দিল্লি এইমসের ডিরেক্টর ডঃ রণদীপ গুলেরিয়া। এইমস ডিরেক্টর গুলেরিয়াও এদিন ভ্যাকসিন নেন। করোনা টিকা নেন এইমসের প্রত্যেক চিকিৎসক ও নার্সরা। টিকা নেন হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীরাও। এদিকে, শনিবার সকালে সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিশ্বের বৃহত্তম টিকাকরণ কর্মসূচির সূচনা করেন। দেশজুড়ে শুরু হয়ে গিয়েছে করোনার টিকাকরণ। রাজ্যে-রাজ্যে নির্দিষ্ট হাসপাতাল, স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে করোনার টিকাকরণ প্রক্রিয়া চলছে। এরাজ্যেও মোট ২০৭টি কেন্দ্র থেকে করোনার টিকাকরণ প্রক্রিয়া চালাচ্ছেন প্রশিক্ষিত স্বাস্থ্যকর্মীরা। শহর কলকাতার ১৭টি কেন্দ্র থেকে করোনার টিকাকরণ প্রক্রিয়া চলছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্বোধনী ভাষণের মধ্যে দিয়ে দেশজুড়ে করোনার টিকারকরণ শুরু হয়। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই প্রক্রিয়া আপাতত চলবে। একই সঙ্গে দেশবাসীকে সতর্ক করে মোদী বলেন, টিকা নেওয়া মানে এই নয় যে, মাস্ক পরা বা দূরত্ববিধি ভুলে যাবেন। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে মোদী বলেন, আজ স্বাস্থ্যকর্মীদের আগে টিকা দিয়ে, দেশ তার ঋণ শোধ করছে’! ঠিক সকাল সাড়ে ১০ টায় বক্তব্য রাখেন মোদী। তিনি বলেন, আজকের দিনের জন্যই অপেক্ষা ছিল দেশবাসীর। অবশেষে সেই প্রতীক্ষার অবসান। খুব অল্প সময়ের মধ্যে মেড ইন ইন্ডিয়া দুটি ভ্যাকসিন তৈরি করে ফেলেছেন বিজ্ঞানীরা। আরও কয়েকটির কাজ চলছে। আর এজন্যে বিজ্ঞানীদের প্রশংসা প্রাপ্য। তারা দিন-রাত এক করে কাজ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভ্যাকসিন তৈরি হতে অনেক সময় লাগে। এক্ষেত্রে খুব কম সময়ে জোড়া ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছ বলে দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী। ভারতের তৈরি এই ভ্যাকসিনের নজর গোটা বিশ্বের রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
পড়া হয়েছে 98 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শনিবার, 16 জানুয়ারী 2021 16:10

এ বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

ফেসবুক-এ আমরা