12072021মঙ্গল
শুক্রবার, 28 আগস্ট 2020 10:55

উষ্ণায়নের থাবা, একবছরে ৫৩২ বিলিয়ন টন বরফ গলেছে গ্রিনল্যান্ডে

নিউজফ্র্যাশ ডেস্ক: নুউক: সাম্প্রতিক রিপোর্টে আপনিও ভয় পেতে পারেন। উষ্ণায়নের জেরে বরফ গলে সমুদ্রের জলতল বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা আরও প্রকট হয়েছে। এক বছরে ৫৩২ বিলিয়ন টন বরফ গলে গেছে গ্রিনল্যান্ড থেকে অর্থাৎ ৫০ হাজার কোটি টনের বেশি বরফ। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাবে বরফ গলার যে আশঙ্কা করা হয়েছিল মেরুপ্রদেশের বরফ তার চেয়েও দ্রুতগতিতে গলছে। তাই আশঙ্কা আরও বেশি বলাই যায়। ২০১৯ সালে গ্রিনল্যান্ডে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ বরফের চাই ভেঙে জলতল স্বাভাবিকের চেয়ে ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছিল। এবার আইস শিট গলতে শুরু করার ফলে আরও ভয়াবহ পরিস্থিতি। প্রতিদিন ৩০ লক্ষ টন জলের পরিমাণ বাড়ছে সমুদ্রগুলিতে অর্থাৎ প্রতি সেকেন্ডে ছ’টি করে অলিম্পিকের পুলের সমান জল বাড়ছে। সম্প্রতি ব্রিটেনের ইউনিভার্সিটি অব লিনকন তাদের গবেষণায় জানিয়েছে, শুধু গ্রিনল্যান্ডের বরফ গলার কারণেই ২১০০ সাল নাগাদ বিশ্বের সমুদ্রস্তরের উচ্চতা ১০ থেকে ১২ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পাবে। নেচার ম্যাগাজিনে প্রকাশিতও রিপোর্টে বলা হয়েছে, আর্কটিক মহাসাগরে তাপমাত্রা অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে, যা আগের বরফ যুগে দেখা গেছে। গ্রিনল্যান্ডের বরফস্তরে ৪০ থেকে ১০০ বছরে কয়েক দফায় ১০ থেকে ১২ ডিগ্রি তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। চলতি বছর ফেব্রুয়ারির শুরুতেই উত্তর মেরুর পূর্বাংশ অস্বাভাবিক উষ্ণ হয়ে উঠেছে এবং তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে ২০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের উপরে উঠেছে বলেও জানা গেছে। এই গতিতে দৌড়লে বরফহীন যুগের প্রথমধাপে পৌঁছতে বেশি সময় লাগবে না। যেভাবে গরম বাড়ছে তাতে পরিবেশবিদ থেকে বিজ্ঞানী সকলেরই কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ। কারণ গোটা বিশ্বজুড়েই তাপমাত্রা বেড়েই চলেছে। আর এই রকম বিশ্ব উষ্ণায়নের জেরে প্রকৃতির চরিত্রও বদলেছে যাচ্ছে। দেখা যাচ্ছে কোথাও প্রবল ঠান্ডা আবার কোথাও বা তাপপ্রবাহের জেরে মৃত্যু হচ্ছে মানুষের। আবার কোথাও বৃষ্টির জেরে বন্যা তো কোথাও আবার জলহীন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়ে একেবারে খরার কবলে পড়তে হচ্ছে। জুটছে না সামান্য পানীয় জলও। গরমের দেশগুলিতে যখন গ্রীষ্মকাল চলে সেই সময়ে সাধারণত বরফ গলতে থাকে গ্রিনল্যান্ডের। কিন্তু চলতি বছরে দেখা গিয়েছে এই বরফগলার পরিমাণটা তুলনায় অনেক বেশি৷ আর সেটা নিয়েই আশংকা প্রকাশ করেছেন পরিবেশ বিজ্ঞানীরা। ২০১৯ সালে মাত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রিনল্যান্ডে ২ বিলিয়ান টন (যা প্রায় ১ লক্ষ ৮১ হাজার ৪৩৭ কোটি কিলোগ্রাম) ওজনের পাহাড় সমান বরফের চাঁই গলে গিয়েছিল। জর্জিয়া ইউনিভার্সিটির পরিবেশ বিজ্ঞানী গবেষক জানিয়েছিলেন হঠাৎ করে এই বিপুল পরিমাণ বরফ গলে যাওয়ার ঘটনা অস্বাভাবিক হলেও নতুন নয়। তাঁর বক্তব্য, বিগত প্রায় দু’ দশক ধরেই গ্রিনল্যান্ডের ধারাবাহিক ভাবে বরফ গলে যাওয়ার জেরে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতাও ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তার থেকেও চিন্তার বিষয় হল- এই বরফ গলার পরিমাণও ক্রমশ বেড়ে যাচ্ছে।
পড়া হয়েছে 166 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 28 আগস্ট 2020 10:58

এ বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

ফেসবুক-এ আমরা