12072021মঙ্গল
শুক্রবার, 02 জুলাই 2021 18:50

‘বউ বলছে বাবা হওয়ার যোগ্য নই’, গর্ভপাতের আশঙ্কা করে পোস্ট নোবেলের

বিনোদন ডেস্ক: কোনও কিছুতেই বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ে না নোবেল। পিতৃত্বের খুশি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেও বিতর্কে বাংলাদেশের গায়ক মইনুল আহসান নোবেল। প্রথমে নিজের বক্তব্য নিয়ে ট্রোলার্সদের নিশানায় পড়েন তিনি। তারপর তাঁর স্ত্রী সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে গর্ভবতী নন দাবি করার পরই তুঙ্গে ওঠে বিতর্ক। এবার পুরো বিষয়টি নিয়ে একটি লম্বা বিস্ফোরক পোস্ট লিখেছেন নোবেল। তাতেই ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের স্ত্রীয়ের বিরুদ্ধে একাধিক গুরুতর অভিযোগ এনেছেন বাংলাদেশের এই সঙ্গীত শিল্পী। তাঁর দাবি, 'হয়ত এতক্ষণ তাঁর আসন্ন সন্তানকে পিল খেয়ে হত্যা করেছে তাঁর স্ত্রী'। নিজের পিতৃত্বের খবর জানানোর পোস্টের সাফাইতে নোবেল বলেন, 'মাত্র ২৩ বছর বয়সে বাবা হবার খুশি ধরে রাখতে পারিনি। স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার লক্ষণগুলি আমার সঙ্গে শেয়ার করতেই আমি মেডিকেল টেস্টের আগেই এক্সসাইটেড হয়ে বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ করে ফেলি। সম্ভাব্য পিতা হিসেবে বিষয়টা কি স্বাভাবিক নয়? আপনি বাবা হবার ইঙ্গিত পেলে নিজে কি করতেন বলুন?' এখানেই শেষ নয়, পোস্টে নিজের অসহায় অবস্থা তুলে ধরেছেন নোবেল। তিনি বলেন,'বাবা হওয়ায় খবর ফেসবুকে পোস্ট করার কিছুক্ষণের মধ্যে আমার স্ত্রী, সালসাবিল আমাকে ফোন করে Abortion করে ফেলার হুমকি দেয়। কারণ, আমি নাকি তাঁর বাচ্চার বাবা হওয়ার যোগ্য নই। আমার অনেক হেটার্স! অনেক বিতর্ক আমাকে নিয়ে। ব্যাঙ্ক ব্যালেন্স এই মুহূর্তে একটু কম। কারণ, আমাদের শিল্পীদের গত বছর মার্চ থেকে অনুষ্ঠান বন্ধ। তাছাড়া দু'জন প্রাপ্তবয়স্ক ছেলে-মেয়ে স্বসম্মতিতে বিয়ে করেছি, তাই আমার স্ত্রীর বাপেরবাড়ি কোনওভাবেই আমাদের বিয়ে টিকতে দেবে না। এমনকী আমার ঘরের তালা ভেঙে ঢুকে ভয় দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে।' এখানেই শেষ নয়, তাঁর সন্তানের বেঁচে থাকা নিয়েও আশঙ্কা প্রকাশ করে লিখেছেন, 'মাতৃত্ব কেবল মাত্র একজন নারীর জন্যই পবিত্র কিংবা সম্মানের বিষয় নয়। একজন পুরুষের জন্যেও অত্যন্ত আনন্দের এবং খুব গর্বের একটি বিষয়। এগুলো নিয়ে কেউ মিথ্যাচার করেনা। একটি শিশুকে ১০ মাস ১০ দিন গর্ভে ধারণ করেন মা। কিন্তু শিশুর পিতা কিন্তু সেই মা-কে ১০ মাস বুকে আগলে রাখে। যদিও আমি আমার স্ত্রী মেডিকেল টেস্ট করবার আগেই আনন্দে উৎফুল্ল হয়ে স্ট্যাটাসটি দিই। মেডিক্যাল করলে হয়তো পজিটিভই আসত। তবে জানিনা এতক্ষনে আমার সম্ভব্য বাচ্চাটি জীবিত আছে নাকি “পিলস” খেয়ে শিশুটির মা শিশুটিকে খুন করেছে। তবে কয়েকটি মাস পর যে শিশু বা ফেরেস্তাটি পৃথিবীর আলো দেখত, আমার প্রাণ চলে গেলেও আমি তার প্রাণহানি হতে দিতাম না। ' বিতর্কে জড়িয়ে পড়া এই সঙ্গীত শিল্পীর অভিযোগ, তাঁর স্ত্রীয়ের কোনও খবরই তিনি জানেন না। তাঁর স্ত্রী তাঁর সঙ্গে থাকেন না। উপরন্তু তাঁর শ্বশুর বাড়ির লোকের বিরুদ্ধে বিয়ে ভাঙার চেষ্টারও অভিযোগ এনেছেন নোবেল। তাঁর দাবি, স্ত্রী নিজেই বাচ্চার জন্য ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন। বিতর্কে ব্যথিত শিল্পীর আক্ষেপ জানিয়ে পোস্টে লিখেছেন, 'আমি তো আমার স্ত্রীর কোনো সন্ধানই জানি না। কোথায় থাকে, কার সঙ্গে থাকে, কি করে, কি পরে, কি খায়? কিছুই জানি না। এই ১.৫ বছরের বৈবাহিক জীবনে আমার সঙ্গে আমার স্ত্রী খুব অল্প সময়ই ছিল। কারণ, সে তার পড়ালেখা এবং তার বাবা-নানু-খালা-বোনদের নিয়ে ব্যস্ত থাকে। সংসারটা এখনও আমার করা হয়নি। হয়তো হবে একদিন। আমাদের সাম্প্রতিক পাবনা ট্যুরে আমার স্ত্রী নিজেই বলেছিলেন, তিনি বাচ্চা নিতে ইচ্ছুক। তবে কেন আজ এই কাদা ছোড়াছুড়ি। সাংবাদিক ভাইদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, আমার বক্তব্য সংবাদ মাধ্যমে প্রচার করার জন্য ধন্যবাদ।' জীবনের একান্ত ব্যক্তিগত অনুভূতি ও দাম্পত্য কলহের মতো নিজস্ব ঘটনা এভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় টেনে আনার পক্ষপাতী অনেক নেটিজেনই নন। তবে অনেকেই বাংলাদেশের এই তরুণ গায়কের সঙ্গে সমব্যথী। আবার অনেকে স্ত্রীকে নিয়ে তাঁর বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন। এপার বাংলায় জি বাংলায় রিয়্যালিটি শো সারেগামাপা-এর হাত ধরে খ্যাতির শীর্ষে উঠেছিলেন নোবেল কিন্তু বিতর্কের ধাক্কায় অনুরাগীদের সে মোহ কাটতে সময় লাগেনি। ২৪ বছর বয়সী এই গায়কের কীর্তিতে সারাক্ষণ শোরগোল নেটপাড়ায়। কখনও বাংলাদেশের রকস্টার জেমসকে জড়িয়ে অশ্লীল পোস্ট তো কখনও ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদীকে টার্গেট। কখনও আবার বাংলাদেশের টিভি সাংবাদিককে মোবাইল ফোনে অপহরণের হুমকি দিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন শিল্পী। ত্রিপুরায় এফআইআরও দায়ের হয়েছিল নোবেলের বিরুদ্ধে। এমনকী ভারতে এলেই তাঁকে গ্রেফতার করা হবে বলেও শোনা গিয়েছিল। সোশ্যাল পোস্টেই ক্ষমা চেয়ে সব বিতর্ক মিটমাট করেন নোবেল। সূত্র:এই সময়।
পড়া হয়েছে 118 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 02 জুলাই 2021 19:28