07132020সোম
শনিবার, 27 জুন 2020 20:30

মেহেন্দীগঞ্জে গৃহকর্মীকে ধর্ষন, তিন লাখ টাকায় দফা-রফার চেস্টা

বরিশাল ব্যুরো: বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় কিশোরী গৃহকর্মীকে (১৪) ধর্ষন ও গর্ভপাত করার অভিযোগে গৃহকর্তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। শনিবার কিশোরীর বাবা আক্কাস আলী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। অভিযোগ রয়েছে, বৃহস্পতিবার মামলা দায়ের করতে থানায় গেলে একটি চিহিৃত দালাল চক্র তিন লাখ টাকার বিনিময়ে কিশোরীর পরিবারের সঙ্গে আপোষ-রফার চেষ্টা চালায়। বিষয়টি থানা কর্তৃপক্ষ টের পেলে পুলিশ কিশোরীর বাবাকে উদ্ধার করার পর শনিবার দুপুরে তিনি মামলাটি দায়ের করেন। অভিযুক্ত ধর্ষক হচ্ছে- মেহেন্দিগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চরহোগলা গ্রামের জুয়েল শাহ। জানা গেছে, একই উপজেলার চরলতা গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের ওই কিশোরী ৭/৮ মাস আগে জুয়েল শাহ’র বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ নেয়। এর কিছুদিন পর প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে জুয়েল শাহ কিশোরীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে। কিশোরী গর্ভবতী হলে সে জুয়েল শাহ’র স্ত্রী লিয়াকে ঘটনা খুলে বললেও কোন প্রতিকার হয়নি। কিছুদিন আগে কিশোরী অসুস্থ হলে তাকে জুয়েল শাহ বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে আসে। পরে বরিশাল নগরীতে তার এক বন্ধুর বাসায় নিয়ে এক নার্স ও আয়ার সহযোগীতায় কিশোরীর ৬ মাসের সন্তান প্রসব ঘটানো হয়। কিশোরীর বাবা আক্কাস আলী অভিযোগ করেন, তিনি বৃহস্পতিবার মামলা করতে মেহেন্দিগঞ্জ থানায় গেলে সাংবাদিক নামধারী এক দালাল তাকে থানা থেকে ফিরিয়ে নিয়ে একটি বাসায় শালিস করে ৩ লাখ টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। দেড় লাখ টাকা দেয়ার পর বাকি টাকা আত্মসাত করে ওই দালাল চক্র। শনিবার তিনি থানায় গিয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি আবিদুল রহমান জানান, একটি চক্র ধর্ষন ঘটনাটি শালিসের নামে টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছিল। পুলিশ শুক্রবার দিবাগত রাতে কিশোরীর বাড়িতে গিয়ে তার বাবাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসার পর তিনি মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত জুয়েল শাহকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। কিশোরীর মেডিকেল পরীক্ষার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
পড়া হয়েছে 30 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: রবিবার, 28 জুন 2020 08:42