05262020মঙ্গল
বুধবার, 13 মে 2020 20:06

দ্বিতীয় মেয়াদে ডিএনসিসি’র মেয়রের দায়িত্ব নিয়েছেন আতিক

নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক: দ্বিতীয় মেয়াদে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন মো. আতিকুল ইসলাম। ভারপ্রাপ্ত মেয়র জামাল মোস্তফার কাছ থেকে আজ দুপুরে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এসময় ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল হাই, সচিব রবীন্দ্র শ্রী বড়ুয়া, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মোমিনুর রহমান মামুনসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। দায়িত্ব গ্রহণের পর অনলাইন ব্রিফিংয়ে মেয়র বলেন, করোনাভাইরাস রোধে ও করোনা পরীক্ষা সহজ করতে ব্র্যাকের সহায়তায় ডিএনসিসির ৮টি স্থানে নমুনা সংগ্রহ বুথ চালু করা হবে। এ সপ্তাহের মধ্যে এসব বুথ স্থাপন করা হবে। এছাড়া একটি পিসিআর ল্যাব স্থাপনেরও পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি জানান। আতিকুল ইসলাম বলেন, সবাইকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। ঢাকা শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডের প্রধান সড়ক ও গলিতে ওয়াটার বাউজারের মাধ্যমে জীবাণুনাশক স্প্রে অব্যাহত রয়েছে। পথচারীদের জন্য হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে সাময়িকভাবে ডিএনসিসির মহাখালী মার্কেটকে করোনা হাসপাতাল ও আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে নির্মাণের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কিছুদিনের মধ্যে এ হাসপাতাল উদ্বোধন করা হবে। বাড়ির মালিকদের উদ্দেশে মেয়র বলেন, করোনা চিকিৎসায় সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক, নার্সদের কেউ হেনস্তা করবেন না। কেউ হেনস্তা করলে মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আবার কোনো বাড়িওয়ালা হেনস্তার শিকার হলে ডিএনসিসিতে অভিযোগ জানাতে পারবেন। মহামারির মধ্যে জরুরি সেবা কার্যক্রমের আওতায় যেমন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, জীবাণুনাশক ছিঁটানো কাজে নিয়োজিত রয়েছেন সিটি করপোরেশনের অসংখ্য কর্মী। সার্বক্ষণিক মাঠে থাকা এসব কর্মীদের ব্যক্তিগত সুরক্ষার জন্য তাদের মাঝে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্কসহ অন্যান্য নিরাপত্তা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। মাঠ পর্যায়ে কর্মরত ডিএনসিসির সব কর্মীর জন্য স্বাস্থ্যবিমার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ দুর্যোগে যদি কোনো কর্মী করোনায় আক্রান্ত হন, অথবা মারা যান, কর্মীর পরিবার বা আক্রান্ত কর্মী স্বাস্থ্যবিমার আওতায় আর্থিক সহায়তা পাবেন। আমার পক্ষ থেকে কর্মীদের এটা ছোট উপহার। আতিক বলেন, ‘এরই মধ্যে ডিএনসিসির অনেকগুলো কাঁচাবাজার খোলা জায়গায় স্থানান্তর করা হয়েছে। আশা করি, সবার সহযোগিতায় এ মহামারী থেকে আমরা মুক্তি পাব। আমাদের অন্যান্য কার্যক্রম মনিটরের জন্য জুম মিটিংয়ের আয়োজন করা হবে। আগামী সপ্তাহের মধ্যে কাউন্সিলরদের সঙ্গে জুম মিটিং করে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হবে।’
পড়া হয়েছে 25 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: বৃহস্পতিবার, 14 মে 2020 17:33

এ বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

ফেসবুক-এ আমরা