05092021রবি
শিরোনাম:
শুক্রবার, 30 এপ্রিল 2021 18:06

গাজীপুরে শিশু ধর্ষণকারী দুই দিনের রিমান্ডে

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর থেকে: গাজীপুরে ৫ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে। তার প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হয়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত আইয়ুব আলীকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়ে পুলিশ ৫ দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করলে আদালত ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। শুক্রবার থেকে দুই দিনের রিমান্ডে রয়েছে অভিযুক্ত আইয়ুব আলী। জিএমপি'র সদর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, নগরীর মাস্টার বাড়ি এলাকায় একটি অটো রিকশা গ্যারেজ কর্মচারী আইয়ুব আলীর বাসায় বুধবার দুপুরে ফ্রিজে পানির বোতল রাখতে রায় প্রতিবেশী এক শিশু। এ সময় ঘরের দরজা বন্ধ করে ধর্ষণ করে। পরে শিশুটি চিৎকার চেঁচামেচি করে ঘরের বাইরে এসে অচেতন হয়ে পড়ে যায়। শিশুটির মাথায় পানি ঢালা হলে কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ার পর ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার হয়ে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ওই এলাকায় গিয়ে অভিযুক্ত ৪৫ বছর বয়সী আইয়ুব আলীকে গ্রেফতার করে। আর ভিকটিমের সার্বিক চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। পরদিন বৃহস্পতিবার ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষার করানো হয় । তিনি আরো জানান, দ্রুততম সময়ের মধ্যে মামলার চার্জশিট দাখিল করে বিচারের মুখোমুখি করা হবে অপরাধীকে। এই শিশুটি ধর্ষণের বিষয়ে এবং আরো কোন ধরনের অপরাধ ও অপকর্মের সাথে আইয়ুব আলী জড়িত কিনা তা খুঁজে বের করার জন্য তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এদিকে, ভিকটিমের মা ও বাবাসহ স্বজনরা এত অল্প বয়সী শিশুটিকে ধর্ষণ করায় তার ভবিষ্যৎ ভেঙ্গে পড়েছেন। তারা গ্রেপ্তার হওয়া আইয়ুব আলীর কঠোর সাজা দাবি করছেন। ভিকটিমের মা আরো জানান, প্রতিবেশী আইয়ুব আলীর সঙ্গে তাদের সম্পর্ক ভালো ছিল। ভিকটিমের বাবা কাভার্ডভ্যান হেলপার কয়েক মাস আগেই গ্রেপ্তার হওয়া আইয়ুব আলীর একছেলের অসুস্থতায় সুস্থ করতে রক্ত দিয়েছিলেন। হাসপাতালেও সপ্তাহখানেক পাশে থেকে ছেলের সেবা-শুশ্রূষা করেছেন। কিন্তু ওই নরপশু আজ অবুঝ মেয়েটিকে মজা খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে ধর্ষণ করে এমন জঘন্য প্রতিদান দিয়েছে। তাই তার আরও কঠোর সাজা হওয়া দরকার বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।
পড়া হয়েছে 8 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 30 এপ্রিল 2021 18:13