সোমবার, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

বিআইডিএসের বার্ষিক সম্মেলন: দরিদ্র দেশের মানুষ ৩ কারণে পর্যাপ্ত টিকা পায়নি

আন্তর্জাতিক সরবরাহের ঘাটতি ও অভ্যন্তরীণ বিতরণ ব্যবস্থার দুর্বলতার কারণে আফ্রিকার দেশগুলোর মানুষ পর্যাপ্ত পরিমাণে করোনার টিকা পায়নি। চলমান মহামারির ইতিটানতে হলে আরও গবেষণা এবং গবেষণা লব্ধজ্ঞান প্রয়োগের সক্ষমতা গড়ে তোলা দরকার।

গতকাল শুক্রবার বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) বার্ষিক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের প্রথম অধিবেশনে যুক্তরাষ্ট্রের ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির শিক্ষক আহমেদ মুশফিক মোবারক এসব কথা বলেন। আহমেদ মুশফিক মোবারক জুমের মাধ্যমে এই অধিবেশনে যুক্ত হয়েছিলেন। রাজধানীর গুলশানের একটি হোটেলে তিনদিনের এ সম্মেলন শুরুহয়েছে।

আহমেদ মুশফিক মোবারক বলেন, উচ্চমাত্রায় বৈশ্বিক চাহিদা ও সীমিত সরবরাহের কারণে টিকার দাম দিতেসক্ষম ও ভূ রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ দেশগুলো করোনার টিকা বেশি পেয়েছে। তিনটি কারণে আফ্রিকার অধিকাংশ দেশসহ নিন্ম ও মধ্যম আয়ের অনেক দেশ তাদের মানুষকে পর্যাপ্ত টিকা দিতে পারেনি: আন্তর্জাতিক সরবরাহের ঘাটতি, টিকা নেওয়ার ব্যাপারে অনেক দেশের মানুষের মধ্যে দ্বিধা-সন্দেহ এবং কিছু দেশের অভ্যন্তরীণ বিতরণ ব্যবস্থা ও অবকাঠামোগত দুর্বলতা। আফ্রিকার দেশ সিয়েরালি ওনেটিকানিতে গড়ে তিন ঘণ্টার বেশি সময় লেগেছেএবং প্রতি ডোজ টিকার দাম সেখানে ছয় মার্কিন ডলারের বেশি।


ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকের বক্তৃতার শিরোনাম ছিল, ‘নিন্ম ও মধ্যমআয়ের দেশগুলোর স্বাভাবিক অবস্থায় প্রত্যাবর্তন: কোভিড-১৯ মহামারি থেকে শিক্ষা’। তাতে তিনি সাতটি বিষয়কে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, মহামারির কারণে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কমে যায়। নিন্ম ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোর মানুষের আয় ৯ থেকে ৮৭ শতাংশকমে যেতে দেখা গেছে। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে মানুষের জীবন মানে। বিশ্বের দেশ গুলোর জন মিতির কাঠামোতে ভিন্নতা আছে।


কিন্তু মহামারি মোকাবিলায়ধনী দেশগুলোর নেওয়ানানাপন্থাকিছু দরিদ্র দেশ অন্ধভাবে অনুসরণ করেছে। তথ্য-উপাত্ত এবং উদাহরণযোগ্য সফল উদ্যোগ গুলোতে অসম্পূর্ণতা ছিল। অন্যদিকে নিন্ম ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোর বিশ্বকে অনেক কিছু দেওয়ার ছিল, তারা একে অন্যকে সাহায্য-সহযোগিতা করতে পারত, একে অন্যের কাছ থেকে শিখতে পারত।


বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও সিডিসিরমতোআন্তর্জাতিকপ্রতিষ্ঠানগুলোরআরও তথ্য-উপাত্তের দরকারছিল যে গবেষণা প্রতিষ্ঠান গুলোএবং নিন্ম ও মধ্যম আয়ের দেশগুলো সরবরাহ করতে পারত।অংশীদারত্ব বা যৌথ উদ্যোগ অনেক বড় ভূমিকা রাখে, এ ক্ষেত্রে সরকারি সহায়তার দরকার। চলমান মহামারির ইতি টানতে হলে আরও গবেষণা এবং গবেষণা লব্ধজ্ঞান প্রয়োগের সক্ষমতা গড়ে তোলা দরকার।


আহমেদ মুশফিক মোবারক সংক্রমণ প্রতিরোধে মাস্কের ভূমিকাবর্ণনা করার সময় মাস্ক নিয়ে তাঁর গবেষণার তথ্য তুলে ধরেন। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সংক্রমণ প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারের পাশাপাশি নিয়মিত হাত ধোয়ারও প্রয়োজন আছে। কোভিড-১৯ মহামারি মানসিক স্বাস্থ্যেরগ ভীর ক্ষত সৃষ্টিকরেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষ

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষঃ