সোমবার, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

বাগেরহাটের সুন্দরবনে অপহরনের ৬ দিন পর ১৫ জেলের মুক্তি

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন থেকে অপহৃত ১৫ জেলে ৬দিন পরে ডাকাতদের জিম্মিদশা থেকে মুক্তি পেয়েছেন। বুধবার সকাল থেকে পৃথক তিনটি জেলে নৌকায় করে তিনজন শরণখোলা উপজেলার দক্ষিন রাজাপুর ও চারজন সোনাতলা গ্রামে এবং আটজন মোংলার চাঁদপাঁই এসে পৌছায়। এদের মধ্যে ডাকাতের মারপিটে আহত ৩ জনকে শরণখোলা থানা পুলিশ উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিয়েছেন।

চিকিৎসা নেয়া জেলেরা হলেন, বাগেরহাট সদর উপজেলার ডেমা কাশিমপুর গ্রামের সোহেল মল্লিক (২৮), মোংলা উপজেলার বাজিকর খন্ডের আসাদুল শেখ (৩৫) ও রামপাল উপজেলার বেতকাঠা গ্রামের হানিফ হাওলাদার (৪৫)। এ তিন জেলের মহাজনরা টাকা দিতে না পারায় ডাকতদল তাদের মারপিট করেছে বলে তারা জানায়। এছাড়া শরণখোলা উপজেলার সোনাতলা গ্রামের জেলে সালাম হাওলাদার (৬৫), ইমাম খান (২৫), সোলেমান হাওলাদার (৩০) ও ইউসুফ হাওলাদার (৩৫) ১০ হাজার টাকা মুক্তিপন দিয়ে মুক্তিপেয়েছেন বলে জানান।

অপরদিকে মোংলার চাঁদপাই এলাকায় ফিরে আসা জেলেদের মোংলা পুলিশ উদ্ধার করে তাদের হেফাজতে নিয়ে গেছে। এরা হলেন, খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বুঝবুনিয়া গ্রামের আকরাম শেখ (৪২), রফিকুল খান (৩৫), মোংলা উপজেলার দক্ষিন হলদিবুনিয়া গ্রামের মিলন শেখ (২৩), আনিস শেখ (২২), বৈদ্যমারী গ্রামের শুকুর আলী বেপারী (৩০), মনির বেপারী (৩৫), রামপাল উপজেলার ঝনঝনিয়া গ্রামের বকতিয়ার বেপারী (৩৫) এবং রূপসা উপজেলার আলি শিকদার (৪৮)। ফিরে আসা জেলেরা জানান, মঙ্গলবার রাতে পূর্ব- সুন্দরবনের হরিণটানা এলাকার একটি খালে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। সেখান থেকে তারা সারারাত নৌকা চালিয়ে বুধবার ভোরে লোকালয়ে এসে পৌছান। নয়ন বাহিনী নাম দিয়ে ৭ জনের নতুন এ ডাকাত দলের কাছে দুইটি পাইপগান ও বেশ কয়েকটি দা রয়েছে। এ ডাকাতদের কাছে তিন লাখ টাকা মুক্তিপনের দাবীতে এখন একটি ট্রলারসহ কয়েকজন জেলে জিম্মি রয়েছে বলে তারা জানান।

এ দিকে ডাকাতদের কবল থেকে জেলে উদ্ধারের ঘটনা নিয়ে বুধবার দুপুরে শরনখোলায় প্রেস ব্রিফিং করেছেন বাগেরহট জেলা পুলিশ সুপার কে এম আরিফুল হক। পুলিশ সুপার প্রেস ব্রিফিংএ জানান, সুন্দরবনে জেলে অপহরণের খবর জানার সাথে সাথে মোংলা, মোরেলগঞ্জ ও শরণখোলা থানা পুলিশের বিশেষ অভিযান শুরু করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী সুন্দরবনকে ডাকাত মুক্ত রাখতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে। উদ্ধারকৃত জেলেদের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করে ডাকাতদের গ্রেফতার করা হবে।

উল্লেখ্য গত ১৫ ডিসেম্বর রাতে নয়ন বাহীনি নামে নতুন এ ডাকাত বাহিনী সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের হরমাল খাল ও বেরির খালে কাকড়া শিকার করার সময় হামলা চালিয়ে এ সব জেলেদের অপহরণ করে নিয়ে যায় এবং মুক্তিপন দাবী করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষ

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষঃ