সোমবার, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

দেবপুর খালে ব্রীজ নেই, রশি টানা নৌকাই একমাত্র ভরসা

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার দেবপুর খালের উপর ব্রীজ নেই, দুই পাড়ের বিভিন্ন পয়েন্টে আছে রশি বাঁধা একাধিক নৌকা। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ গ্রামবাসীর এ রশি বাঁধা নৌকাই এখন যোগাযোগের একমাত্র ভরসা। প্রতিদিন ঝূঁকি নিয়ে রশি টেনে আসা-যাওয়া করছে নারী, শিশু সহ বৃদ্ধ মানুষ । এছাড়া পায়রাবন্দর ও তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের স্থানীয় শ্রমিকদের এ নৌকায় চড়েই নদী পার হতে হয়। এভাবে পারাপার হতে গিয়ে ছোট-খাটো
দুর্ঘটনাও ঘটেছে বলে ওই খাল পাড়ের বাসিন্দারা জানিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চম্পাপুর ও ধানখালী এই দুই ইউনিয়নের এক পাড়ে পশ্চিম পাঁচজুনিয়া, ওপাড়ে পূর্ব দেবপুর গ্রাম। মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে দেবপুর খাল। উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে এই খালের অবস্থান। গ্রামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় গ্রামের ছেলে-মেয়েদের স্কুল কলেজে যেতে হয় রশি টানা নৌকায় পাড়ি দিয়ে। এতে শিশুদের ঝূঁকি থাকে অনেক বেশি। দুর্ঘটনা এড়াতে অনেক অভিভাবক তাদের শিশুদের স্কুলে পাঠাতে নিরুৎসাহ বোধ
করছেন।

একাধিক শিক্ষার্থী জানান, তাদের প্রতিদিন নৌকার রশি টেনে পার হয়ে স্কুলে যেতে হয়। এতে করে অনেক সময় বই খাতাও ভিজে যায়।

ধানখালী সোনাগাজী হায়াতুন্নেছা আশ্রাব একাডেমি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুখরঞ্জন তালুকদার বলেন, নৌকায় পারাপারে ঝূঁকি থাকায় অনেকে সময় শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসে না। খালটিতে একটি সেতু থাকলে রশি টানা নৌকায় পারাপার হতে হতো না।

চম্পাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিন্টু তালুকদার বলেন, পাঁচজুনিয়া ও দেবপুর দুই গ্রামের মাঝখানে এই খাল। এখানে একটি ব্রিজ থাকলে স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীসহ গ্রামবাসীদের চলাচলে অনেক সুবিধা হতো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষ

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষঃ