রবিবার, ৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

জয়পুরহাটে ৭০ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা

খাদ্যে উদ্বৃত্ত জেলা জয়পুরহাটে চলতি ২০২২-২০২৩ নিবিড় বার্ষিক ফসল উৎপাদন মৌসুমে ৬৯ হাজার ৭৫০ হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। বোরো চাষ সফল করতে বর্তমানে জেলার কৃষকরা বোরো বীজতলা তৈরি করছেন কৃষি বিভাগের সার্বিক তত্ত্বাবধানে।

স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, জেলায় এবার ৬৯ হাজার ৭ শ ৫০ হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে উচ্চ ফলনশীল (উফশী) জাতের ৬১ হাজার ৯ শ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের রয়েছে ৭ হাজার ৮ শ ৫০ হেক্টর জমি। এতে বোরো চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ লাখ ৮২ হাজার ৬ শ ৮৬ মেট্রিক.টন। উপজেলা ভিত্তিক বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে রয়েছে সদর উপজেলায় ১৬ হাজার ৮১০ হেক্টর, পাঁচবিবিতে ১৯ হাজার ৯৯৫ হেক্টর, আক্কেলপুরে ১০ হাজার ৩৫০ হেক্টর, ক্ষেতলালে ১০ হাজার ৫শ হেক্টর এবং কালাই উপজেলায় ১২ হাজার ৯৫ হেক্টর জমিতে। বোরো চাষ সফল করতে উফশী জাতের ৩ হাজার ৩৭৮ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৪০ হেক্টর জমিতে আদর্শ বীজতলা তৈরি লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করেছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ । ইতোমধ্যে ২ হাজার ৮৯৫ হেক্টর জমিতে আদর্শ বীজতলা তৈরি সম্পন্ন হয়েছে।

জেলায় বোরো ধান চাষ সফল করতে স্থানীয় কৃষি বিভাগ সারের চাহিদা নির্ধারণ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ইউরিয়া ২০ হাজার ৭শ ২০ মেট্রিক টন, টিএসপি ১৪ হাজার ৪ শ মেট্রিক টন, এমওপি ৯ হাজার ৫শ ৭৬ মেট্রিক টন, জিপসাম ৯ হাজার মেট্রিক টন ও জিংক সার ৭শ ৯২ মেট্রিক টন। বিএডিসি (বীজ) কৃষকদের মাঝে উন্নত জাতের বীজ সরবরাহের ব্যবস্থা করেছে। স্থানীয় ব্যাংক বিশেষ করে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক বোরোসহ অন্যান্য শীতকালীন ফসল চাষের কৃষকের মাঝে কৃষি ঋণ বিতরণের ব্যাপক উদ্যোগ নিয়েছে।

জেলায় বোরো চাষ সফল করতে কৃষক মাঠ স্কুলের মাধ্যমে কৃষকদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও উপকরণ সরবরাহ করা হচ্ছে বলে বাসস’কে জানান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোছা: রাহেলা পারভিন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষ

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষঃ