মঙ্গলবার, ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

গাজীপুরে পোশাক কারখানার উৎপাদন কার্যক্রম করার অভিযোগ

গাজীপুরে নীট সিটি লিমিটেড নামক একটি পোশাক কারখানার নিরাপত্তা কর্মীদের উপর হামলা, মূল গেটে বালু ফেলে রেখে ও শ্রমিক কর্মচারীদের নানা ধরনের হুমকি দিয়ে ব্যবসায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অভিযোগ উঠেছে। মালিকপক্ষ বলছেন, এতে তাদের উৎপাদন ও রপ্তানি কার্যক্রম ব্যাহত হওয়া ছাড়াও কোটি কোটি টাকা লোকসান হচ্ছে। অন্যদিকে ভবন মালিকপক্ষ বলছেন, উল্টো তারাই হয়রানি হচ্ছেন।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মোগরখাল এলাকায় অবস্থিত নীট সিটি লিমিটেড কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মীর নজরুল ইসলাম জানান, তাদের কারখানাটি পুরোপুরি রপ্তানিমুখী একটি পোশাক কারখানা। এই কারখানায় উৎপাদিত তৈরি পোশাক বিশ্বের নামী দামী কোম্পানির গ্রাহকদের কাছে বিক্রি ও রপ্তানি করে কোটি কোটি টাকা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে থাকেন। কিন্তু পোশাক কারখানাটির জন্য ভাড়া নেয়া ভবনটির মালিকপক্ষ নানাভাবে তাদের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওই ভবনটি ভাড়া নিয়ে ১৫/১৬ কোটি টাকা বিনিয়োগ করার পর মালিকপক্ষ নানা রকমভাবে এর আগেও উৎপাদন কার্যক্রমে ব্যাঘাত ঘটায় ও ক্ষতির মুখে ফেলে। এসব নিয়ে পোশাক কারখানার মালিকপক্ষ উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হন।

সম্প্রতি আদালতের নির্দেশ অমান্য করে ভবনটির মালিকপক্ষ কারখানার শ্রমিক কর্মচারীদের উপর হামলা করে, হুমকি দিয়ে উৎপাদন কার্যক্রমে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। সবশেষ কয়েকদিন আগে কারখানার মূলফটকে উঁচু করে কয়েক ট্রাক বালু ফেলে কারখানার শ্রমিক কর্মচারীদের আসা যাওয়া প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। এর উপর দিয়েও কোনোভাবে শ্রমিক কর্মচারীরা আসা-যাওয়া করতে থাকলেও তাদের উপর হামলা করা হচ্ছে, নানাভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এসবের কারণে গত এক সপ্তাহ ধরে কারখানাটির উৎপাদন কার্যক্রম এবং রপ্তানি কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ক্ষতির মুখে পড়েছে।

তিনি আরো বলেন, একটা ভয়ংকর বাজে অবস্থার সৃষ্টি করা হয়েছে। এতে শুধু এই কোম্পানি বা আমাদের ক্ষতি হচ্ছে না, রপ্তানি কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে না পারায় দেশের অর্থনীতিরই একটা ক্ষতি হচ্ছে। স্থানীয় আইন- শৃঙ্খলা বাহিনীকে ও বিষয়টি জানানো হয়েছে উল্লেখ করে তিনি এর দ্রুত প্রতিকার দাবি করছেন।

এ বিষয়ে ভবন মালিকের ছেলে খোরশেদ আলম জানান, নিজেদের ভবনটি যে প্রতিষ্ঠানের কাছে ভাড়া দিয়েছেন তারা বছরের পর বছর ধরে ভাড়াতো দিচ্ছেনই না, বরং মামলা দিয়ে ও নানাভাবে ভবন মালিকপক্ষকে হয়রানি করছে। তারা এসব প্রতিকারের জন্য বিভিন্ন জায়গায় আবেদন করেছেন। বর্তমানে ওই ভবনটিতে উপরে আরো তলা নির্মাণ করার জন্য এবং বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ করার জন্য বালু রেখেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষ

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বশেষঃ