10262021মঙ্গল
শিরোনাম:
রবিবার, 12 সেপ্টেম্বর 2021 18:47

তালিবানের চোখরাঙানি উড়িয়েই কাবুল বিমানবন্দরে ফিরলেন ১২ মহিলা কর্মী

নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক:‌ নিরাপদে থাকতে চাইলে বাড়িতেই থাক!‌ কাজে যেতে হবে না!‌ সতর্ক করে হুঁশিয়ারি দিয়েছিল আফগানিস্তানে সদ্য ক্ষমতায় ফেরা তালিবান। কিন্তু সেই হুঁশিয়ারিকে ভয় পেয়ে বাড়িতে বসে থাকা তাঁদের অন্তত সম্ভব নয়। কারণ সেসব মানতে গেলে বাড়ির লোকগুলোকে না খেয়ে মরতে হবে। তাই সাহস করে বেরিয়েই পড়েছেন রাবিয়ারা। যোগ দিয়েছেন কাবুল বিমানবন্দরের কাজে। ৩৫ বছরের রাবিয়ার ঘরে তিন সন্তান। তিনি একা রোজগেরে। তাই তালিবানি পরোয়ানা মানা তাঁর পক্ষে আর সম্ভব হয়নি। তিনি জানালেন, ‘‌আমার পরিবার চালানোর জন্য টাকার দরকার। ঘরে বসে খুব চিন্তা হত। খারাপ লাগত। এখন অনেক ভালো লাগছে কাজে যোগ দিয়ে।’‌ রাবিয়া একা নন। তালিবান কাবুল দখলের আগে বিমানবন্দরে চাকরি করতেন ৮০ জন মহিলা। তালিবান সরকার গড়ার পর কাজে ফিরেছেন রাবিয়া সহ ১২ জন। আরও অনেকেই কাজে যোগ দিতে চান। অনেকেরই কাজ করাটা দরকার। কিন্তু তালিবানি ফতোয়ার ভয়ে পারেননি। রাবিয়ারারা এসবের পরোয়া করেননি। তিনি সহ আরও ৬ জন বিমানবন্দরের প্রবেশপথে মহিলাদের চেক করছেন। বাকি ৬ জন ভিতরে। সেই দলে রয়েছে রাবিয়ার দিদি কুদশিয়া জামাল। ৪৭ বছরের কুদশিয়ারও ঘরে পাঁচ সন্তান। জানালেন, পরিবারের লোক তাঁকে নিয়ে খুব চিন্তিত। কাজে আসতে দিতে চাইছিলেন না। কিন্তু কুদশিয়ার আর উপায় ছিল না। বললেন, ‘‌কাজে ফিরে ভালো লাগছে। এখনও কোনও সমস্যা হয়নি।’‌ ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত প্রথমবার যখন তালিবান ক্ষমতায় ছিল, তখন মহিলাদের সব স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছিল। এবার ক্ষমতায় ফিরে জানিয়েছিল, আগের বারের মতো হবে না। সরকার, প্রশাসনে থাকতে পারবেন মহিলারা। কাজ করতে পারবেন, পড়তে পারবেন তাঁরাও। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে তা হয়নি। পরে তারা জানিয়েছে, নিজেদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই মহিলাদের ঘরে বসে থাকা উচিত। কারণ আফগানিস্তানে এখন নিরাপত্তার অভাব। সেদেশে রাষ্ট্রসঙ্ঘের মহিলা পরিষদের প্রতিনিধি অ্যালিসন ডেভিডিয়ান তালিবানের এই পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা করেছেন। প্রসঙ্গত, কাবুল বিমানবন্দরে কাজে ফিরেছে আফগান পুলিশও। তালিবান রক্ষীদের সঙ্গে তারাও সামলাচ্ছে নিরাপত্তার দায়িত্ব।
পড়া হয়েছে 20 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: রবিবার, 12 সেপ্টেম্বর 2021 18:56

এ বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

ফেসবুক-এ আমরা