03232019শনি
শিরোনাম:
শুক্রবার, 22 ফেব্রুয়ারী 2019 13:49

পাকিস্তান সেনাকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তত থাকার নির্দেশ ইমরান খানের

নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক ইসলামাবাদ : পুলওয়ামাকান্ডে ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশ। ভারতের সমর্থনে এগিয়ে এসেছে বহু দেশ। জঙ্গ হামলার কড়া জবাব দিতে, ইতিমধ্যেই একের পর এক পদক্ষেপ নিচ্ছে মোদী সরকার। জবাব দিচ্ছে সেনাও। আর এরইমধ্যে একঘরে হয়ে পড়ে এবার পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পাক সেনাকে স্পষ্ট জানালেন, ভারত কোনও পদক্ষেপ নিলে তার প্রত্যুত্তর দেবে পাক সেনা। বৃহস্পতিবার ইমরানের নেতৃত্বে জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন দেশের সামরিক বিভাগের শীর্ষ আধিকারিকরা, তারা জানায়, পাকিস্তানকে রক্ষা করতে সক্ষম পাক সরকার। সূত্রের খবর, সেনাকে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ভারতের দিকে থেকে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হলে পাক সেনা যেন তার জবাব দেয় জানিয়েছেন ইমরান খান। সেই সঙ্গে এও জানান, পুলওয়ামা হামলার ছক জম্মু-কাশ্মীরেই হয়েছিল। প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামাতে জঙ্গি হামলায় শহিদ হন ৪০ সিআরপিএফ জওয়ান। আর এই ভয়াবহ হামলায় কড়া জবাব দিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এক জনসভায় সেনাদের জবাব নেওয়ার পূর্ণ স্বাধীনতা দেন বলে জানা যায়। অন্যদিকে, পুলওয়ামাকান্ডের পর পাক সেনাপ্রধান কমর বাজওয়া পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে দেখা করেন। এনএসসি-র বৈঠকের আগেই তারা দেখা করেন। দেশের সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়। এরপর এনএসসির বৈঠক হয়। যেখানে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান উপস্থিত ছিলেন। হাজির ছিলেন জেনারেল বাজওয়া থেকে শুরু করে প্রতিরক্ষামন্ত্রী পারভেজ খটক, বিদেশমন্ত্রী সাহ মেহমুদ কুরেশি, অর্থমন্ত্রী অসদ উমর প্রমুখ। প্রসঙ্গত, পুলওয়ামার ঘটনার পর থেকে বদলা নেওয়ার দাবিতে ফুঁসছে গোটা দেশ। শুধু দেশবাসীই নয়, শহিদের রক্ত যে বিফলে যাবে না সেই ইঙ্গিত ইতিমধ্যে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দফায় দফায় জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা সহ বাহিনীর সেনা আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন রাজনাথ সিং। পাকিস্তানকে সবদিক থেকে শেষ করে দিতে উঠে পড়েছে ভারত। এবার তীব্র জল সংকটে যাতে পাকিস্তান ভোগে সেজন্যে চরম ব্যবস্থা নিল ভারত। যে তিনটি নদী ভারত থেকে পাকিস্তানের দিকে বয়ে চলে। ওই তিনটি নদীর জল কার্যত আটকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশে ৮,৫৩০ কোটি টাকার প্রকল্পের সূচনা করতে গিয়ে নিতিন গডকড়ী বলেন, পাকিস্তানের দিকে বয়ে গিয়েছে তিনটি নদী। ওই তিনটি নদীর জল এবার যমুনাতে ফেলার প্রক্রিয়া চলছে। ফলে যমুনা নদীতে জলের পরিমাণ আরও বেড়ে যাবে। সূত্র:কোলকাতা২৪।
পড়া হয়েছে 18 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 22 ফেব্রুয়ারী 2019 13:50