08182019রবি
শুক্রবার, 15 জানুয়ারী 2016 14:52

বঙ্গবন্ধুর খুনীকে ফিরিয়ে আনতে সহযোগিতা চাইলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রে পলাতক বঙ্গবন্ধুর একজন খুনীকে দেশে ফিরিয়ে নিতে মার্কিন সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। এ ব্যাপারে আইনি জটিলতা দূর করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাসও পাওয়া গেছে। যুক্তরাষ্ট্র সফরে এসে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দেখা করে এই দাবি জানান। পরে একই দিন সন্ধ্যায় নিউইয়র্কে এক আলোচনা সভায় এ তথ্য জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। ‘১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ উপলক্ষে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের পালকি সেন্টারে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত এই আলোচনা সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আরো বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর খুনীদের দম্ভ দেখেছিলাম। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই দম্ভ ভেঙে দিয়েছেন। আর এটা শুধু শেখ হাসিনার পক্ষেই সম্ভব। তিনি বলেন, আমরা অনেক নেতা দেখেছি, যারা ভোল পাল্টে নানান ধরনের উল্টাপাল্টা কথা বলেন। এমনকি ওয়ান ইলেভেনের পরেও অনেক কথা বলতে শুনেছি। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যার কোনো তুলনা হয় না। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের চতুর্থতম নেতা, যিনি তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত দিতে পারেন। তিনি পৃথিবীর যোগ্য নেতাদের মধ্যে ১৩তম নেতা। শেখ হাসিনা কারো রক্তচক্ষুকে ভয় পান না বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। তিনি যোগ্য নেতার যোগ্য কন্যা। তার হাতে আজ বাংলাদেশ। আমরা অনেক ষড়যন্ত্র দেখেছি। কোনো ষড়যন্ত্র শেখ হাসিনাকে পেছনে টানতে পারেনি। পদ্মা সেতুর কথিত দুর্নীতির কথা উল্লেখ করে আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, আমাদের দোষারোপ করা হয়েছিল যে আমরা নাকি পদ্মা সেতু নিয়ে চুরি করেছি। অথচ সমস্ত হিসাব নিকাষ করে দেখা গেলো সব ভুল। আজ সেই পদ্মা সেতু হচ্ছে। পদ্মা সেতুর সঙ্গে বাংলাদেশের চেহারাও পাল্টে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আজ আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আজ আমাদের কোথাও হাত পাততে হয় না। আমরাই বরং এখন পণ্য বিদেশে রপ্তানি করছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা এখন আর পরনির্ভরশীল নই। যুক্তরাষ্ট্র জানতে চেয়েছিল আমরা কী চাই। কিন্তু আমরা তাদের বলেছি আমরা এখন নিজের পায়ে দাঁড়াতে শিখেছি। সন্ত্রাস দমনে আমরা শুধু তোমাদের সহযোগিতা চাই। আমরা সন্ত্রাস মোকাবেলা করছি। আইএস হোক আর জঙ্গী হোক আমরা সব নিয়ন্ত্রণ করতে পারছি। তিনি স্পষ্ট করে বলেন, আইএস আমাদের দেশে নেই। দু-এজন যা-ও আছেন তারা আইএসের কর্মকাণ্ড বিশ্বাস করে। আমরা তাদেরও সনাক্ত করেছি। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে এ ব্যাপারে কোনো তথ্য থাকলে আমরা সেই তথ্য আদানপ্রদানে সহযোগিতা চেয়েছি। জামায়াত নিষিদ্ধের ব্যাপারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আদালতে এ ব্যাপারে শুনানি চলছে। এটা এখন আদালতের বিষয়। এ ব্যাপারে আর কথা না বলাই ভাল। তবে জামায়াতের পেছনে কারা আছে তা সবাই ভাল করে জানে। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তার মন্ত্রণালয়ের সাফল্যের কথা তুলে ধরেন। এসময় তিনি ফায়ার সার্ভিস বিভাগের সাফল্যের কথা তুলে ধরে বলেন, এখন আর কেউ অভিযোগ করতে পারবে না যে আগুন নিভে গেলে ফায়ার সার্ভিস পৌঁছায়। পুলিশের মতই ভাল কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জাসদ কার্যকরী সভাপতি মঈন উদ্দিন খান বাদল এমপি ও বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাজ আজাদের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ডা. মাসুদুল হাসান, সহ-সভাপতি আক্তার হোসেন, সৈয়দ বসারত আলী, আবুল কাশেম, সামসুদ্দিন আজাদ ও লুৎফুল কবীর, যুক্তরাষ্ট্র জাসদ সভাপতি আব্দুল মুসাব্বির, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা ও ফারুক আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ আবুল মনসুর খান, যুক্তরাষ্ট্র শ্রমিক লীগ সভাপতি কাজী আজিজুল হক খোকন, নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল, সিটি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় নেতা সাখাওয়াত বিশ্বাস প্রমুখ।
পড়া হয়েছে 372 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 15 জানুয়ারী 2016 15:00