09202019শুক্র
শুক্রবার, 20 ফেব্রুয়ারী 2015 22:54

বাংলাদেশ ও ভারতের অমীমাংসিত বিষয়গুলোর সমাধান হবে : রাষ্ট্রপতি

ডেস্ক, নিউজফ্ল্যাশ টোয়েন্টিফোর বিডি ডটকম

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সফরের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের অমীমাংসিত বিষয়গুলোর সমাধান হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেছেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ খান।
আজ শুক্রবার বিকালে মমতা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করতে বঙ্গভবনে গেলে আবদুল হামিদ এ আশা প্রকাশ করেন। রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান,পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে প্রায় ৩৫ মিনিট দ্বিপক্ষীয় বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন আবদুল হামিদ।

দুই দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক বিনিময় প্রসঙ্গে মমতা বলেন, একসঙ্গে বসে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সব সমস্যার সমাধান করা যাবে। এ সময় তিনি দুই দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক উৎসব আয়োজনের পরিকল্পনার কথাও রাষ্ট্রপতির কাছে তুলে ধরেন।

মমতা বলেন, দুই দেশের মধ্যে বিশেষ করে পশ্চিবঙ্গের সঙ্গে পর্যটন খাতে পারস্পরিক সম্পর্ক বিকাশের সুযোগ রয়েছে। এই খাত বিকশিত হলে বিদেশি পর্যটকেরা দুই দেশেই সফরে আসতে আরও আগ্রহী হবে।
এ সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আবদুল হামিদের কাছে আগরতলা-ঢাকা-কলকাতার মধ্যে সরাসরি বাস সার্ভিস ও খুলনা-কলকাতার মধ্যে ট্রেন সার্ভিস চালুর বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

মমতা বলেন, পশ্চিমবঙ্গ সরকার কলকাতায় ‘নজরুল তীর্থ’ ও আসানশোলে ‘কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়’ স্থাপনে পদক্ষেপ নিয়েছে।
কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু চেয়ার’ প্রতিষ্ঠা এবং ‘নজরুল তীর্থ’ ও ‘কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়’ স্থাপনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগ্রহ প্রকাশ করায় ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রপতি হামিদ। তিনি বলেন, এসব উদ্যোগের মধ্য দিয়ে দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও গভীর হবে।

বঙ্গভবনে আসার আগে সোনারগাঁও হোটেলে দুই বাংলার সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে এক মত বিনিময়ে মমতাও বলেন, তিস্তার পানি বণ্টন চুক্তির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তিনি আলোচনা করবেন। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তিন দিনের সফরে শুক্রবার রাতে ঢাকায় পৌঁছান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের পর ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে যান তিনি।

পড়া হয়েছে 705 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 20 ফেব্রুয়ারী 2015 23:04