05202018রবি
শুক্রবার, 16 ফেব্রুয়ারী 2018 07:45

শাসক দলের বিরুদ্ধে গণতন্ত্র লুঠের অভিযোগ মোদীর

শাসক দল গণতন্ত্রকে লুঠ করছে৷ সরাসরি অভিযোগ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ বৃহস্পতিবার দলের এক জনসভা থেকে তিনি এই অভিযোগ করেন৷ এদিন ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায় বিজেপির নির্বচনী প্রচারে অংশগ্রহণ করতে গিয়েছিলেন মোদী৷ স্থানীয় স্বামী বিবেকানন্দ ময়দানের ওই সভা থেকে শুরু থেকেই শাসক দল সিপিএমের বিরুদ্ধে একের পর এক আক্রমণ শানাতে শুরু করেন তিনি৷ প্রধানমন্ত্রীর কথায়, কমিউনিস্টরা সর্বত্র গণতন্ত্র লুঠ করে৷ বন্দুকের নলেই শাসন করতে চায়৷ সাধারণ মানুষের সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করে৷ এই কারণেই পশ্চিমবঙ্গে সিপিএমকে হারতে হয়েছে৷ এবার ত্রিপুরার পালা৷ এখানেও হারবে সিপিএম৷ তার পর সেখানে বিজেপির সরকারই তৈরি হবে বলে আত্মবিশ্বাসের সুর শোনা গিয়েছে নরেন্দ্র মোদীর গলায়৷ আর সেই জয়ের রাস্তা সুগম করতে তিনি কৌশলে কাছে টানতে চেয়েছেন ত্রিপুরার সাধারণ মানুষ৷ তিনি যে ত্রিপুরাবাসীর ভালবাসায় আপ্লুত, সেকথাও বারবার নিজের বক্তব্যের মাধ্যমে বোঝাতে চেয়েছেন৷ পাশাপাশি ত্রিপুরার মানুষের এই ভালবাসা তিনি সুদসমেত ফিরিয়ে দিতে চান বলেও দাবি করেছেন৷ আরও পড়ুন: ফের সেনা ক্যাম্পে জঙ্গি হামলা, চলছে গুলির লড়াই প্রত্যাশিতভাবেই এদিনের জনসভায় এসেছে কংগ্রেস প্রসঙ্গ৷ আর সেই প্রসঙ্গ তুলে মোদী একসূত্রে গেঁথেছেন সিপিএম ও কংগ্রেসকে৷ বিভিন্ন রাজ্যে সিপিএমের সন্ত্রাসের রাজত্ব দিল্লিতে কংগ্রেসের মদতে হয়েছে বলে এদিন অভিযোগ করেন৷ পাশাপাশি আশ্বাস দেন, তাঁর জমানাতে এমন কিছু হবে না বলে৷ তিনি বলেন, ‘‘এখন আর আগের দিন নেই৷ দিন বদল হয়েছে৷ যারা এখনও খুন ও সন্ত্রাসরাজ কায়েম করছে, তাদের আইনি ব্যবস্থার জন্য তৈরি থাকতে হবে৷’’ একই সঙ্গে এদিনের জনসভা থেকে মোদী সাধারণ মানুষকে বোঝানোর চেষ্টা করেন সিপিএমের নীতিগুলি কীভাবে ত্রিপুরার মানুষের ক্ষতি করেছে৷ আর সেকথা বলতে গিয়ে তিনি টেনে এনেছেন৷ কথায় কথায় সিপিএমের বনধ ডাকার প্রসঙ্গও৷ মোদীর অভিযোগ, বনধ ডেকে সিপিএম সারা দেশে অস্থিরতা তৈরি করে, অথচ ত্রিপুরায় শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি দিতে নারাজ সিপিএম৷ তবে বিজেপি ক্ষমতায় এলে এই বৈষম্য দূর হবে বলে তিনি আশ্বাস দিয়েছেন৷
পড়া হয়েছে 47 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 16 ফেব্রুয়ারী 2018 07:49