08242019শনি
মঙ্গলবার, 23 জানুয়ারী 2018 20:32

বিমানে ওয়াইফাই

ইন্টারনেট পরিষেবার পাশাপাশি সুরক্ষার দিকটিও মাথায় রাখতে হবে বিমান সংস্থাগুলিকে। প্রতীকী ছবি। ইন্টারনেট পরিষেবার পাশাপাশি সুরক্ষার দিকটিও মাথায় রাখতে হবে বিমান সংস্থাগুলিকে। প্রতীকী ছবি।
টেক ডেস্ক মাঝ আকাশে সেলফি তোলা বা স্মার্টফোনে কথাবার্তা বলার দিন বোধহয় আর দূরে নেই। উড়ানে ইন্টারনেট পরিষেবা চালুর কথা চিন্তা-ভাবনা শুরু করেছে দেশের বিমান সংস্থাগুলি। তবে এই সুবিধা পেতে বিমানভাড়ার সঙ্গে গুনতে হতে পারে অতিরিক্ত ২০-৩০ শতাংশ। আন্তর্জাতিক মান অনুযায়ী, উড়ানে আধ ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা ওয়াইফাই ব্যবহারে খরচ হতে পারে ৫০০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকা। ১৯ জানুয়ারি, শুক্রবার অন্তর্দেশীয় (ডোমেস্টিক) ও আন্তর্জাতিক উড়ানে ইন্টারনেট পরিষেবা চালুর অনুমতি দিয়েছে টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অব ইন্ডিয়া (ট্রাই)। তবে ট্রাইয়ের নির্দেশ, পরিষেবার পাশাপাশি সুরক্ষার দিকটিও মাথায় রাখতে হবে সংস্থাগুলিকে। একটি প্রস্তাবে ট্রাই জানিয়েছিল, টেক-অফ করার পর বিমানে ইন্টারনেটের সুবিধা চালু করা যেতে পারে। তবে সে ক্ষেত্রে যাত্রীদের সমস্ত ধরনের পার্সোনাল ইলেকট্রনিক ডিভাইস (পিডিএ) ফ্লাইট মোডে রাখতে হবে। ভূপৃষ্ঠ থেকে অন্তত ৩০০০ মিটার উঁচুতে মোবাইল পরিষেবার সুবিধা পাবেন যাত্রীরা। মঙ্গলবার এক বিমানসংস্থার আধিকারিক টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, ট্রাইয়ের ওই প্রস্তাবের ফলে অন্তর্দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক উড়ানে নেট পরিষেবা চালু করা নিয়ে আর কোনও বাধা রইল না। তাঁর মতে, এই পরিষেবা চালুর জন্য নেট পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলিকে মোটা অঙ্কের টাকাও দিতে হবে বিমান সংস্থাগুলিকে। কম দূরত্বের ডোমেস্টিক ফ্লাইটের টিকিট বুকিং করতে সাধারণত ১২০০ টাকা থেকে আড়াই হাজার টাকা খরচ হয়। নেট পরিষেবা পেতে স্বাভাবিক ভাবেই ওই ধরনের উড়ান ভাড়ায় দাম বাড়বে। একটি বেসরকারি বিমানসংস্থার এক শীর্ষ আধিকারিক বলেন, “ডোমেস্টিক ফ্লাইটে এই পরিষেবা চালু করা সম্ভব কি না, তা নির্ভর করছে পরিষেবা খরচ ও দাহিদার উপর।” বিমানে কী ভাবে ইন্টারনেটের সুবিধা মিলবে? ওই আধিকারিক জানিয়েছেন, এই পরিষেবা চালুর আগে ঠিক করতে হবে, স্যাটেলাইট না মোবাইল টাওয়ার— কীসের মাধ্যমে নেট সিগনালের আদান-প্রদান করা হবে। সেই অনুযায়ী বিমানে অ্যান্টেনা বসাতে হবে। এই মুহূর্তে আন্তর্জাতিক উড়ানে ইন্টারনেট পরিষেবা দেয় লুফৎহানসা, এমিরেটস, ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ এবং ডেল্টা এয়ারলাইন্স। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি সংস্থা হোয়াট্‌সঅ্যাপ বা অন্য মেসেঞ্জার পরিষেবা ব্যবহারের জন্য বিনামূল্যে ওয়াইফাই চালু করেছে। ভারতে কম দূরত্বের অন্তর্দেশীয় উড়ানে নেট পরিষেবা পেতে কত জন যাত্রী আগ্রহী হবেন তা নিয়ে অবশ্য অনেকেই সন্দিহান। এয়ার প্যাসেঞ্জার অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়ার সর্বভারতীয় সভাপতি ডি সুধাকর রেড্ডির মতে, “বেশি দূরত্বের যাত্রায় বা আপৎকালীন সময়ে হয়ত এই পরিষেবা কাজে আসতে পারে। তবে লো-কস্ট কেরিয়ারের জন্য এটি খুব একটা যথোপযুক্ত না-ও হতে পারে।”
পড়া হয়েছে 277 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: মঙ্গলবার, 23 জানুয়ারী 2018 20:42