11192018সোম
শুক্রবার, 08 ডিসেম্বর 2017 11:03

১৯ শতকের ভূতের সঙ্গে মিলনের দাবি সুন্দরীর

  প্যাট্রিক সুইজি ও ডেমি মুর অভিনীত ‘গোস্ট’ (১৯৯০) ছবির দৃশ্য। ছবি: ইউটিউব প্যাট্রিক সুইজি ও ডেমি মুর অভিনীত ‘গোস্ট’ (১৯৯০) ছবির দৃশ্য। ছবি: ইউটিউব
ক্রমে সেই যুবক তাঁকে স্পর্শ করে। সিয়ান এক শীতল অথচ আন্তরিক তরঙ্গ অনুভব করেন। তিনি বুঝতে পারেন, এই যুবক জীবিত পৃথিবীর কেউ নয়। এক দূরবর্তী কটেজে নির্জনবাস করছিলেন ২৬ বছরের সুন্দরী সিয়ান জেমসন। আর সেখানেই ঘটেছে এমন এক ঘটনা, যাকে তিনি জীবনের অন্যতম সেরা অভিজ্ঞতা বলে বর্ণনা করেছেন তিনি। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘দ্য মিরর’-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রেমিকের সঙ্গে বিচ্ছেদের পরে লন্ডনের একঘেয়ে জীবনে বীতশ্রদ্ধ হয়ে সিয়ান একা ওয়েলসের একটি কটেজে বাস করতে শুরু করেন। তাঁর দাবি, সেখানেই এক ১৯ শতকীয় প্রেতপুরুষের সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ হয়। এই কটেজের ফায়ারপ্লেসের উপরেই তিনি প্রথম এই প্রেতকে দেখতে পান। সিয়ান বলেছেন, বিচ্ছেদের পর থেকে তাঁর চেতনায় তাঁর প্রেমিক ছাড়া অন্য কারওর প্রসঙ্গই ছিল না। কিন্তু প্রেতকে দেখার পর থেকে তাঁর মনে হতে শুরু করে, তিনি যেন নতুন জীবন শুরু করলেন। আসলে ওই কটেজে বেশ কিছু পুরনো পেন্টিং ছিল। তার মধ্যে একটি এক অতি সুদর্শন যুবকের পোর্ট্রেট। প্রতিকৃতির নীচে ১৮২০ সালের উল্লেখ ছিল। ওয়েসলের গ্রামীণ প্রকৃতির মাঝখানে চমৎকার দিন কাটছিল সিয়ানের। কিন্তু এক রাতে তিনি এক অস্বস্তিকর স্বপ্ন দেখেন। স্বপ্নটির প্রকৃতি বেশ খানিকটা যৌনতা মাখা। ঘুম ভেঙে তাঁর মনে হয়, তিনি যেন আবার প্রমে পড়েছেন। প্রায় প্রতি রাতেই এর পরে চলতে থাকে ইরোটিক স্বপ্নের মিছিল। কয়েক মাস এই ভাবে কাটে। তার পরে একদিন ভোরে ঘুম থেকে উঠে তিনি টের পান, এক সুদর্শন যুবক তাঁর পাশে শুয়ে রয়েছে। তার পরনে ঢিলে সাদা শার্ট, আর পুরনো কায়দার ব্রিচেস। প্রথমে তাঁর মনে হয়, তিনি স্বপ্নই দেখছেন। কিন্তু ক্রমে সেই যুবক তাঁকে স্পর্শ করে। সিয়ান এক শীতল অথচ আন্তরিক তরঙ্গ অনুভব করেন। তিনি বুঝতে পারেন, এই যুবক জীবিত পৃথিবীর কেউ নয়। এবং বিদ্যুচ্চমকের মতো তাঁর মনে পড়ে, এই যুবক আসলে ওই কটেজে দেখা পোট্রেটের মানুষটিই। প্রবল আবেগে ভেসে যান সিয়ান। তারপরেই তিনি শারীরিক ভাবে মিলিত হন ওই যুবকের সঙ্গে। মিলনের কালেই তিনি অলৌকিক ভাবে টের পান ওই যুবকের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। তিনি জানতে পারেন, যুবকের নাম রবার্ট। আর ১০০ বছর আগে সে জীবিত ছিল। কেমন ছিল অশরীরীর সঙ্গে মিলন? সিয়ান জানিয়েছেন বিস্তারিত। তাঁর কথায়, যুবকের শরীরের ভার তিনি অনুভবই করেননি। আর কথাবার্তা? সিয়ানের মতে, যাবতীয় কথোপকথন হয়েছিল চিন্তাতরঙ্গ মারফত। প্রসঙ্গত, সিয়ান নিজে পরলোক ও প্রেতের অস্তিত্বে বিশ্বাসী। এর পরে বেশ কয়েক বার রবার্টের সঙ্গে তাঁর মিলন ঘটে। রবার্ট কে, জানার জন্য বিস্তর শ্রম করেছেন সিয়ান। গুগলেও খোঁজ করেছেন। কিন্তু কোনও জায়গা থেকেই সদুত্তর আসেনি। পরে বন্ধুদের এই ঘটনার কথা বললে, তাঁরা তাঁকে পাগল বলে হাসাহাসি করেন। বেশি চিজ খেয়ে পেট গরম হেয়ছে বলে জানান অনেকে। এই ঘটনার কথা শুনে সাইকোথেরাপিস্ট টিনা র‌্যাডজিসজেউইক জানিয়েছেন, এই ধরনের অভিজ্ঞতা বিরল নয়। এর আগেও অনেকে দাবি করেছেন এমন অভিজ্ঞতা। এটি আসলে ঘুম থেকে ওঠার ঠিক আগের মুহূর্তে দেখা এক বিশেষ ধরনের হ্যালুসিনেশন। এই ধরনের ভ্রান্তিবিলাস এমনিতে খুবই বিশদ হয়। দ্রষ্টা একে সত্য বলেই ভাবতে থাকেন। এর মূলে কাজ করে অবসাদ। তাঁর যুক্তি অনুসারে, সদ্য প্রেম-বিচ্ছিন্ন সিয়ান এতটাই অবসাদগ্রস্ত ছিলেন যে, তিনি ওই কটেজের পোট্রেটটিকে নিয়ে অবচেতনে অতিমাত্রায় ভাবেন। যার ফল দাঁড়ায় এই মিলন-মায়া। এবেলা।
পড়া হয়েছে 154 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 08 ডিসেম্বর 2017 11:24