08232019শুক্র
সোমবার, 30 অক্টোবার 2017 08:06

যৌনমিলনে লুকিয়ে ভয়ঙ্কর এক আধ্যাত্মিক রহস্য!

‘সেক্স’ কথাটি আজকাল সবার কাছে প্রায় জলভাত। কিন্তু আমরা বেশির ভাগই প্রকৃত অর্থে এর সাধ নিতে পারি না। আর এর পেছনে সেকেলের আখড়ে ধরা আমাদের কিছু গোঁড়ামি। তাই জানিয়ে রাখি, সেক্স এর মাধ্যমে দুটো দেহের যে মিলন তা শুধু জৈবিক তৃপ্তির মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। শারীরিক মিলনে বহু আধ্যাত্মিক রহস্য নিহিত আছে সৃষ্টির শুরু থেকে। আমরা কেউই সেই বিষয়টির গভীরে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করিনা। কিন্তু সত্যি অর্থে যে সেই স্বাদ নিতে পারে, তার জীবন হয় অনন্য অসাধারণ। যৌনসংগমের সময় গভীর অন্তরঙ্গতার মাধম্যে আমাদের শরীরে এক ধরনের প্রাকৃতিক এনার্জি তৈরি হয়। এক্ষেত্রে যৌনসঙ্গির নির্বাচন হতে হবে সিলেক্টিভ। কারণ, যৌন সঙ্গীর সাথে অন্তরঙ্গতার বৃদ্ধি এই এনার্জিকে আরও ত্বরান্বিত করে। দেহজ্যোতি নিঃসরণ এর মাধ্যমে আমাদের দেহে যে শক্তির সঞ্চারণ হয় সেটা দিন কে দিন আমাদের সুস্থ ও কর্মক্ষম করে তোলে। অতএব সঙ্গী বাছার ব্যাপারে সতর্কতা প্রয়োজন। প্রাকৃতিক এনার্জির পুরো পজিটিভ দিকগুলো পেতে চাইলে শুধু একজন পার্টনার এর সাথেই সেক্স লাইফটাকে সম্পূর্ণ ভাবে উপভোগ করার চেষ্টা করতে হবে। অন্য ক্ষেত্রে একাধিক জনের সাথে সেক্সে, ক্রমশ ডিপ্রেশন,হতাশা,ঘন ঘন অসুস্থ হওয়ার প্রবণতা বাড়িয়ে জীবনকে নেগেটিভ দিকে চালিত করে। যারা মনে করেন একাধিক জনের সাথে সেক্স করলে পুরুষত্ব অটুট থাকবে বা যৌন তৃপ্তির চূড়ান্তে পৌছনো যাবে তাদের ধারণটা সম্পূর্ণ ভুল। বরং তাদের মধ্যে কখনো জীবনের মূল্যবোধ,অনুভূতি,সম্পর্কের গভীরতা ইত্যাদি বিষয়গুলো গড়ে ওঠে না। ফলে তারা কখনো পরিবার প্রিয়জনদের কাছ থেকে সঠিক মূল্যায়ন বা গ্রহণযোগ্যতা পায় না। একাধিক জনের সাথে একই সময়ে শারীরিক মিলন, সমগ্র সমাজের কাছেই নিন্দনীয়। বিষয়টিকে বিকৃত রুচির পরিচয়, অবৈধ বা প্রতারক, খারাপ মানুষ হিসেবে উপস্থাপন করা হয়। মূলত কোন স্বাভাবিক বিবেক সম্পন্ন মানুষ চায় না সম্পর্কের ব্যাপারে অবিশ্বাস বা প্রতরণার শিকার হতে। আর সেক্স এর ক্ষেত্রে নিরাপদ যৌন সঙ্গী অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। সেক্স বিষয়টি এখন কেবল মাত্র নিরাপদ’ই না বরং আরও বিশদ ভাবে তুলে ধরা হয়েছে তার অন্তর্নিহিত দিক বিশ্লেষণের দ্বারা।
পড়া হয়েছে 262 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: সোমবার, 30 অক্টোবার 2017 08:40
এই ক্যাটাগরিতে আরো: « প্রথম সহবাস ?