10222017রবি
শুক্রবার, 06 অক্টোবার 2017 13:32

প্রথম সহবাস ?

প্রথম বার সহবাস করবেন? অথচ তার আগে ভয়ে সিঁটিয়ে রয়েছেন, লাগবে না তো? আচ্ছা তাহলে বলি, দুনিয়াতে আপনিই কি প্রথম মহিলা যিনি সহবাস করছেন? তাহলে অযথা ভয় পেয়ে প্রেমের ওই অসাধারণ মুহূর্তগুলোকে ঘেঁটে ঘ করে দেওয়ার কোনও মানে হয় না৷প্রথমবার সহবাস করার আগে কী কী করবেন তা নিয়ে তো প্রচুর গবেষণা করেছেন, কিন্তু কী কী করতে হবে না, তা কখনও ভেবে দেখেছেন কি? উত্তরটা না৷ লেডিজ ফর তাহলে প্রথমেই ভাবুন সেক্সে ব্যথা লাগার ভয়টা নিয়ে৷ কিন্তু মনে রাখবেন ঠিকঠাক সহবাসে ব্যথা লাগার সম্ভাবনা প্রায় নেই-ই৷ পুরোটাই আমাদের মনের ভুল, অতিরিক্ত টেনশন থেকেই আমাদের মনে হয় ওই বুঝি লেগে গেল৷ দেশের…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক এখনও বহু জায়গাতেই পুরুষশাসিত সমাজে মেয়েদের বাঁধা ধরা গণ্ডির মধ্যে থাকতে হয়। আজকের দিনে সারা বিশ্বেই নারী স্বাধীনতা এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখনও বহু জায়গাতেই পুরুষশাসিত সমাজে মেয়েদের বাঁধা ধরা গণ্ডির মধ্যে থাকতে হয়। গান, সিনেমা, লেখা বিভিন্ন মাধ্যমকে হাতিয়ার করে এই বিষয়ে প্রচার চালানো হলেও ছবিটা খুব একটা বদলায়নি। তার জ্বলজ্যান্ত উদাহরণ হল সৌদি আরব। সে দেশে মহিলারা এখনও কী কী করতে পারেন না, জানলে অবাক লাগতে পারে। আরবে এখনও মহিলাদের গাড়ি চালানোর অনুমতি নেই। ইসলামিক আইন বা সৌদির ট্র্যাফিক আইনে এমন কিছু বলা না থাকলেও এই নিয়মই কঠোর ভাবে মানা হয় সে দেশে। এমনকী,…
তোফায়েল আহমেদ ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু জন্মেছিলেন এই বাংলার মাটিতে। এই দিনটি যদি বাঙালি জাতির জীবনে না আসত তাহলে আজও আমরা পাকিস্তানের দাসত্বের নিগড়ে আবদ্ধ থাকতাম। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি সংগ্রামের পথ বেছে নিয়েছিলেন। ধীরে ধীরে নিজেকে গড়ে তুলেছেন। আমৃত্যু দেশ ও জাতির জন্য, দেশের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য সংগ্রাম করেছেন। বঙ্গবন্ধুর একান্ত সানি্নধ্যে থেকে দেখেছি তার কৃতজ্ঞতাবোধ, বিনয়, মানুষের প্রতি প্রগাঢ় ভালোবাসা। স্বদেশে কিংবা বিদেশে সমসাময়িক নেতা বা রাষ্ট্রনায়কদের তেজোময় ব্যক্তিত্বের ছটায় সম্মোহিত করা, উদ্দীপ্ত করার এক আশ্চর্য ক্ষমতা ছিল বঙ্গবন্ধুর। সহায়তা করতেন। এর মধ্যে দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও বিরোধী দলের প্রতিপক্ষীয় লোকজনও ছিলেন। কিন্তু শর্ত ছিল, যাদেরকে অর্থ সাহায্য…
> মিত্রকে আর পাশে পাওয়া যাচ্ছে না আগের মতো। প্রথমে এটা ছিল নিছক অস্বস্তি। ক্রমে ক্রমে সেটাই এখন রীতিমতো চাপ। ঠান্ডা যুদ্ধের সময়ে ভারতের ঘনিষ্ঠতম মিত্র ছিল রাশিয়া। গত কয়েক বছর ধরে আমেরিকার সঙ্গে বন্ধুত্ব বাড়িয়ে চলার ফাঁকে দূরত্ব বেড়েছে তাদের সঙ্গে। এখন তো মস্কোর তালিবান-নীতি থেকে শুরু করে চিন-পাক আর্থিক করিডর নিয়ে তাদের ভূমিকা রীতিমতো উদ্বেগে ফেলে দিয়েছে সাউথ ব্লককে। দীর্ঘদিনের নির্ভরযোগ্য বন্ধু দেশটির সঙ্গে সম্পর্কের এই অধোগতি নিয়ে বেজায় চিন্তায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। এতটাই যে, রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কে সমস্যার ক্ষেত্রগুলি খতিয়ে দেখে এ ব্যাপারে সক্রিয় হওয়ার জন্য বিদেশসচিব এস জয়শঙ্করকে নির্দেশ দিয়েছেন মোদী। দরকারে বিদেশ মন্ত্রকের রাশিয়া-বিষয়ক ডেস্ককে…
বিবিসি ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মনোহার পার্রিকারের বাংলাদেশ সফর নিয়ে এপর্যন্ত বাংলাদেশের দিক থেকে খুব সামান্যই জানা গেছে।তিনি হচ্ছেন দ্বিপাক্ষিক সফরে বাংলাদেশে যাওয়া প্রথম ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। ভারতীয় গণমাধ্যমে এই সফর নিয়ে বেশ আলোচনা চলছে। বেশিরভাগ সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, বাংলাদেশে চীনা অর্থনৈতিক এবং সামরিক প্রভাব যেভাবে বাড়ছে, তাতে ভারত উদ্বিগ্ন। বিশেষ করে সম্প্রতি চীন বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে দুটি সাবমেরিন দেয়ার পর বিষয়টি ভারতকে বেশ ভাবনায় ফেলেছে বলে মনে করছে ভারতীয় গণমাধ্যম। টাইমস অফ ইন্ডিয়া গত ১৫ই নভেম্বর মনোহার পার্রিকারের বাংলাদেশ সফর সম্পর্কে যে রিপোর্ট প্রকাশ করে, তার শিরোনাম ছিল "টু কাউন্টার চায়না, গভর্ণমেন্ট রাশিং ডিফেন্স মিনিস্টার মনোহার পার্রিকার টু বাংলাদেশ।" অর্থাৎ…
নিখিলেশ রায়চৌধুরী অধিকৃত কাশ্মীরে দুর্ধর্ষ সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে অন্তত ৩৫ জন লস্কর জঙ্গিকে খতম করে দিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর স্পেশাল ফোর্স৷ সন্ত্রাসবাদীদের অন্তত সাতটি ঘাঁটি তারা ধ্বংস করে দিয়েছে৷ বলা বাহুল্য, জঙ্গি ঘাঁটিতে প্রশিক্ষক হিসাবে একাধিক পাক সেনা অফিসারও ছিলেন৷ তাঁরাও মরেছেন৷ অনেক দিন আগেই এই ধরনের হট পারস্যুট টাইপ কমান্ডো অপারেশনের দরকার ছিল৷ কারণ, অধিকৃত কাশ্মীরে পাকিস্তানি সামরিক গুপ্তচর বাহিনী ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্সের (আইএসআই) পরিচালনায় জঙ্গি শিবির চলার ঘটনা নতুন ব্যাপার নয়৷ এ নিয়ে বহু আগে থেকেই অসংখ্য তথ্যপ্রমাণ ভারত পাকিস্তানকে বারংবার দিয়েছে৷ এমনকী, আন্তর্জাতিক স্তরেও তা তুলে ধরেছে৷ মার্কিন প্রশাসনকে জানিয়েছে৷ কিন্তু উলটো দিক থেকে কোনও ইতিবাচক সাড়া মেলেনি৷ লস্কর-ই-তোইবার প্রধান…
বৃহস্পতিবার, 22 সেপ্টেম্বর 2016 09:52

ভারতের মোকাবেলায় কতটা তৈরি পাকিস্তান

বিবিসি বাংলা ভারত আর পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মীরের উরিতে হামলার পটভূমিতে যে উত্তেজনা বিরাজ করছে তার মধ্যে পাকিস্তানের সামরিক বিশ্লেষকরা বলছেন ভারত, সীমান্ত পেরিয়ে সীমিত আকারে একটি সামরিক তৎপরতা চালাতে পারে - তাই কিছুটা হলেও একটা আশঙ্কা পাকিস্তানে তৈরি রয়েছে। "তবে সেরকম পরিস্থিতির জন্য ভারত এবং পাকিস্তান - কোনো দেশেরই কোনো সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নেই। একবার যদি এ ধরণের যুদ্ধ শুরু হয়, তাহলে কিভাবে তা বন্ধ করা যাবে, সেখান থেকে বেরিয়ে আসা যাবে - তা নিয়ে দুই দেশের মধ্যেই উদ্বেগ রয়েছে।'' বলছেন ইসলামাবাদে নিরাপত্তা এবং সামরিক বিশ্লেষক ড: আয়েশা সিদ্দিকা। দুই চির-বৈরী দেশের মধ্যে উত্তেজনা চরমে পৌঁছেছে গত সপ্তাহের জঙ্গী হামলায় ১৮…
কৃষ্ণা বসু কিশোরগঞ্জে হামলার খবরটা পেয়ে মনটা খুব বিষণ্ণ হয়ে গিয়েছে। রাতে ঠিক করে ঘুমাতেও পারলাম না। সত্যি কথা বলতে কি, কিশোরগঞ্জের সঙ্গে প্রত্যক্ষ যোগাযোগ কিন্তু আমার খুব একটা নেই। ছোট থেকেই আমি কলকাতায়। মাত্র একবারই গিয়েছি কিশোরগঞ্জে। সেও খুব ছোটবেলায়। সে সময় কিশোরগঞ্জকে কেমন দেখেছি, তা খুব একটা মনেও নেই। কিন্তু কিশোরগঞ্জে না গিয়েও সে শহরের সঙ্গে যোগাযোগ যেটা ছিল, সেটা প্রত্যক্ষ যোগাযোগের চেয়েও অনেক বেশি। কারণ, বাবা আর কাকার মুখে নিরন্তর শুনতাম ওই শহরটার কথা। কলেজ জীবন থেকেই বাবারা কলকাতায়। কিন্তু তখনও কলকাতার ঠাঁইকে বাবারা বাসা বলতেন, আর কিশোরগঞ্জকে বলতেন বাড়ি। পরে পেশার সূত্রে স্থায়ী ভাবে কলকাতায় থাকা…
> নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইরান সফরে গিয়ে সে দেশে চাবাহার বন্দর নির্মাণের জন্য এক ঐতিহাসিক চুক্তিতে সই করেছেন। বলা হচ্ছে, মধ্য এশিয়ার সঙ্গে ভারতের সংযোগের ক্ষেত্রে সমুদ্রপথে এক নতুন দিগন্ত খুলে দেবে এই চাবাহার বন্দর, যেখানে পাকিস্তানি ভূখন্ড ব্যবহার করার কোনও বাধ্যবাধকতা থাকবে না। ইরানের ওপর থেকে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর এই প্রথম কোনও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী তেহরানে গেলেন। তবে ভারত একই সঙ্গে কীভাবে ইসরায়েল ও ইরান, দুই প্রতিপক্ষ শক্তির সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে পারবে তা নিয়ে পর্যবেক্ষকরা অনেকেই সন্দিহান। তেহরানে সোমবার ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি আর আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির মধ্যে চাবাহার…
শুক্রবার, 27 নভেম্বর 2015 12:33

কঠিন সময়

নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক গত সপ্তাহ বাংলাদেশ কঠিন সময়ের মধ্য দিয়া পার হইল। সন্ত্রাসের কাছে হার মানিব না বলা যত সহজ, দেশের মাটিতে বারংবার সন্ত্রাসের আঘাত সহ্য করিয়াও বিতর্কিত কর্মযজ্ঞ চালাইয়া সন্ত্রাস-সমর্থক বিপক্ষের উষ্মার লক্ষ্য হইতে স্বীকার করা ততখানি সহজ নহে। আওয়ামি লিগ সরকার ক্রমাগত প্রমাণ করিয়া আসিতেছে যে তাহারা কিছুতেই প্রতিশ্রুত কাজ হইতে সরিবে না, যে প্রত্যাঘাতই নামিয়া আসুক না কেন। গত সপ্তাহে জামাত-ই-ইসলামির জেনারেল সেক্রেটারি আলি আহসান মহম্মদ মুজাহিদ এবং বিরোধী দল বাংলাদেশ ন্যাশনাল পার্টির নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরির ফাঁসি কার্যকর করিয়া প্রধামনমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও তাঁহার অপরাজেয় সাহসের পরিচয় দিলেন। পাশাপাশি, সাবধানতার ক্ষেত্রেও এক পা বাড়াইয়া খেলিলেন। সমস্ত রকম…
< > নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘জিয়াউর রহমানকে রাষ্ট্রপতি বলা যাবে না।’ বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদ ও পার্লামেন্টারি বোর্ডের যৌথসভার উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। জিয়াউর রহমানকে রাষ্ট্রপতি বললে আদালতের রায়ের অবমাননা হবে বলেও মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। সেনাপ্রধান থেকে জিয়াউর রহমান এবং এইচ এম এরশাদের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলকে উচ্চ আদালতের অবৈধ ঘোষণা করার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান ও এরশাদের ক্ষমতা দখল সম্পূর্ণ অবৈধ। উচ্চ আদালত সংবিধানের পঞ্চম ও সপ্তম সংশোধনী বাতিল করেছে।’ >