09292020মঙ্গল
মঙ্গলবার, 11 আগস্ট 2020 11:41

আপন হতে বের হয়ে...

দীর্ঘ গৃহবন্দি জীবনে ছোটরা যেন গুটিয়ে না যায়। নিউ নর্মাল জীবনের সঙ্গে ওদের পরিচয় করান। সুরক্ষিত ভাবে তাকে এগিয়ে দিন বহির্জগতে দিনকতক ধরেই ছাদে খেলতে যাচ্ছে না ছোট্ট মহুল। আগে বিকেল হলেই সে ব্যাট, বল নিয়ে বেরিয়ে পড়ত পাড়ার গলিতে। কিন্তু অতিমারির জেরে রাস্তায় বেরোনো বন্ধ হওয়ায় ছাদে শুরু হয় খেলা। কিন্তু ছাদ থেকে বারবার বল পড়ে যাওয়ার সমস্যা, বড়দের বকুনি। তাই সে আর খেলতেই যায় না। অন্য দিকে তোয়াও এখন আর বন্ধুদের সঙ্গে সে ভাবে গল্প করে না। দিনের বেশির ভাগ সময় ফোনে মুখ গুঁজেই বসে থাকে। বড়দের জন্য আনলক শুরু হলেও বাচ্চারা প্রায় ঘরবন্দি। তাঁদের স্কুল, কোচিংও বন্ধ।…
নিউজফ্ল্যাশ ডেস্ক: সামান্য জ্বর আর গলা ব্যথা নিয়ে ডাক্তারের কাছে যেতে সোয়াব টেস্ট হল। জানা গেল আপনার করোনা পজিটিভ, তবে উপসর্গ অত্যন্ত মৃদু এবং অন্য কোনও ক্রনিক অসুখ নেই। বয়সও খুব বেশি নয়। তাই বাড়িতে থেকে অবস্থার সামাল দিতে হবে। কোভিড-১৯ পজিটিভ যখন বাড়িতে থাকবেন, তাঁকে কিছু নিয়ম মেনে চলার সঙ্গে সঙ্গে নির্দিষ্ট ঘেরাটোপের মধ্যে থাকতে হয়। বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ যোগীরাজ রায় জানালেন যাঁদের কোনও উল্লেখযোগ্য কোমর্বিডিটি নেই, বয়স খুব বেশি নয় এবং নিজেই নিজের খেয়াল রাখতে পারবেন একমাত্র সেই সব করোনা পজিটিভদের বাড়িতে পর্যবেক্ষণে রাখা যেতে পারে। আক্রান্ত মানুষটি এমন একটি ঘরে থাকবেন যেখানে সংলগ্ন বাথরুম…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক: লকডাউনে সারা ক্ষণ পরিবারের সঙ্গ পেলেও এক অজানা আশঙ্কা হবু মায়েদের মনে কাঁটার মতো খচখচ করে। বিশেষ করে যাঁরা প্রথম বার মা হতে চলেছেন, তাঁরা অনভিজ্ঞতার দরুণ আরও বেশি মানসিক উদ্বেগ নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। যাঁরা মা হতে চলেছেন, তাঁদের নির্দিষ্ট সময় পর পর কিছু টেস্ট করানো ও চিকিৎসকের পরামর্শ নিতেই হয়। কিন্তু এই লকডাউনের সময় হাসপাতাল বা ক্লিনিকে যাওয়ার আগে একটু ভাবতেও হচ্ছে। তাই নিতান্ত প্রয়োজন না হলে অন্তঃসত্ত্বাদের বাড়ির বাইরে না বেরনোই ভাল বলে মত বিশেষজ্ঞদের। ঠিক কী কী মানতে হবে এ সময়? স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ অভিনিবেশ চট্টোপাধ্যায়ের মতে, গর্ভাবস্থার প্রথম তিন মাসে বাড়তি সাবধানতা নেওয়া উচিত।…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক : ত্বক তরতাজা রাখতে হোক অথবা আকস্মিক কোনও আঘাতে, অ্যালো ভেরার বিকল্প নেই। গাছের পাতার শাঁসেই লুকিয়ে এমন গুণাগুণ, যা শরীরের অন্দর ও বাহির... সুস্থ রাখে দুই-ই। কিন্তু তা ব্যবহার করার উপায়ও জানা জরুরি সেঅনেক কাল আগের কথা। ইজিপ্টের দুই সুন্দরী নেফারতিতি আর ক্লিয়োপেত্রার সৌন্দর্য, ত্বকের ঔজ্জ্বল্যের চর্চা সর্বত্র। নিজেদের সৌন্দর্য ধরে রাখতে তাঁরা ব্যবহার করতেন নানা প্রাকৃতিক উপাদান। অনেক সময়েই তাঁদের রূপরুটিনে থাকত অ্যালো ভেরার নির্যাস, শাঁস। আবার যুদ্ধে আহত সৈন্যদের ক্ষত নিরাময় করতে অ্যালো ভেরার দাওয়াই দিতেন আলেকজ়ান্ডার, ক্রিস্টোফার কলম্বাস। গ্রিস, ইজিপ্ট, ভারত, মেক্সিকো, জাপান, চিন বহু যুগ আগে থেকেই নানা পরিচর্যায় ব্যবহার করছে অ্যালো…
বিনোদন প্রতিবেদক হলদে আলো ঠিকরে পড়ছিল রেড কার্পেটে। সেই আলোতে একজন করে মডেল কিংবা ডিজাইনার পা রাখছেন আর হুট করেই যেন কিছুটা বদলে যাচ্ছিলেন। মুহূর্তেই ভিন্ন রঙের আলো ছিটকে আসছে, তখন আরেক রূপ ফুটে উঠছে তাঁদের। সন্ধ্যা মিলিয়ে গিয়েছে। আকাশে যদিও কিছুটা আলোর আভা ছড়িয়ে ছিল, সে আলোও আড়াল হয়ে গিয়েছিল রং বেরঙের পোশাক পরে আসা মডেলদের আলোতে। রাজদর্শন হলে প্রবেশের মুখেই আমন্ত্রণপত্রে চিহ্ন দিয়ে দিচ্ছিলেন দ্বাররক্ষী ও আয়োজকেরা। প্রবেশপথের কার্য সম্পন্ন করলেই রেড কার্পেট। আগত অতিথি, মডেল ও ডিজাইনাররা রেড কার্পেটে পা দিয়েই ভেতরে চলে যাচ্ছেন। ভেতরে বলতে হলঘরে নয়, বাইরে কফি স্ন্যাক্সের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কেউ কেউ রেড…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক পা ছাড়াই জন্মগ্রহণ করে মেয়েটি। এ নিয়ে আফসোসের শেষ ছিল না তার বাবা-মায়ের। তাই মাত্র এক সপ্তাহ বয়সেই পঙ্গু মেয়েকে রাস্তায় ফেলে দেন নিষ্ঠুর বাবা-মা। কিন্তু সেই মেয়েই একদিন বড় হয়ে সুপার মডেল হবে তা কে জানতো! ২৩ বছর বয়সী এই সুপার মডেলের নাম সেসর। দুই পা না থাকলেও ইচ্ছা আর মনোবলের জোরেই বর্তমানে তিনি সুপার মডেল। প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে এরইমধ্যে চমকে দিয়েছেন গোটা বিশ্বকে। সেসরের জন্ম থাইল্যান্ডে। জন্ম থেকেই শারীরিকভাবে পঙ্গু মেয়ের বাবা-মা তাকে জন্মের এক সপ্তাহ পরই একটি বুদ্ধ মন্দিরের পাশের রাস্তায় ফেলে চলে যান। এরপর শিশু সেসরের ঠিকানা হয় অনাথ আশ্রমে। সেখান থেকেই তাকে…
শুক্রবার, 01 ফেব্রুয়ারী 2019 15:06

শরীর ভাল রাখতে তো রোজ হাঁটুন

নিজস্ব প্রতিবদেক ডায়াবিটিস, থাইরয়েড, হার্টের নানা সমস্যা বা নিছকই ওবেসিটির শিকার, সমাধানের অন্যতম পন্থা ‘হাঁটুন’। চিকিৎসক বা পুষ্টিবিদ, সকলেই আজকাল হাঁটার পরামর্শ দিয়ে থাকেন রোগীদের। এমনিতেই প্রযুক্তিনির্ভর জীবনে কায়িক শ্রম অনেকটা কমেছে। শারীরিক পরিশ্রম কমে যাওয়ার কারণেই বিভিন্ন অসুখ দানা বাঁধছে শরীরে। হাঁটা আপনার সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উন্নতিতে সাহায্য করে। প্রতিদিন অন্তত আধ ঘণ্টা হাঁটাহাঁটিতেকেবলমাত্র পেশি বা স্নায়ুর উপকার হয় এমনই নয়, বরং হাড়ের জন্যও খুব উপকারী এটি। হার্টের কার্যকারিতা বৃদ্ধি, শরীরের অতিরিক্ত চর্বি গলিয়ে দেওয়া, পেশিশক্তি বাড়ানো, রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণইত্যাদি ইতিবাচক দিক রয়েছে হাঁটাহাঁটির। হাঁটলে শরীরে এন্ডরফিনের ক্ষরণ বাড়ে। তাই মানসিক চাপও উধাও হয় এতে। তাই জিমে গিয়ে ভারী…
ডেঙ্গি জ্বর হলে অথবা দুর্ঘটনায় চোট পেলে আমরা চিকিৎসকের কাছে যাই। কিন্তু যদি কোনও কারণে মন-মেজাজ খারাপ হয়, তা হলে মনের চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার কথা ভাবি ক’জন! আজ ‘ওয়ার্ল্ড মেন্টাল হেলথ ডে’-তে মন ভাল রাখার শপথ নিতে অনুরোধ করলেন মনস্তত্ত্ববিদ মঞ্জুশ্রী গঙ্গোপাধ্যায় ও মনোবিদ অনুত্তমা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুনলেন সুমা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমাদের জীবনযাপন দ্রুত বদলে যাচ্ছে। কাজে-অকাজে নানা কারণে সকলেই দৌড়াচ্ছি। আর এর ফলে বাড়ছে শরীর ও মনের চাপ। বিশেষ করে অল্পবয়সী ছেলে-মেয়েদের মধ্যে মানসিক ভারসাম্য নানা ভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। মনের অসুখ হলে লুকিয়ে না রেখে চিকিৎসা করানো দরকার। এই বিষয় নিয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে ‘ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন ফর মেন্টাল হেল্‌থ’ ১৯৯২ সালে…
সৌন্দর্যের সংজ্ঞা কী? অনেকের কাছে হয়তো শারীরিক সৌন্দর্যই শেষকথা৷ অনেকসময়ই চটজলদি সুন্দর হয়ে উঠতে মানুষ কসমেটিক্স সার্জারির সাহায্য নেন৷ যা সাময়িকভাবে সুন্দর হতে সাহায্য করলেও, ভবিষ্যতে ক্ষতির মুখে ফেলে ত্বককে৷ তাই, এবার সুন্দর হয়ে উঠুন প্রাকৃতিক উপায়ে৷ সাহায্য নিন আয়ুর্বেদের৷ তিনটি দৃষ্টিকোণ থেকে ব্যাখ্যা করা হয়েছে এই আয়ুর্বেদিক সৌন্দর্যকে৷ জেনে নিন সৌন্দর্য নিয়ে কী বলছে আর্যুবেদ! এবার প্রাকৃতিক উপাদানকে ব্যবহার করুন শারীরিক সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে৷ বাজার চলতি কসমেটিক্সের সৌন্দর্য সাময়িক৷ তাই, সৌন্দর্যকে ধরে রাখতে ব্যবহার করুন ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্টস৷ আয়ুর্বেদ জানাচ্ছে, ‘ত্বকের যত্নের এমন কিছু ব্যবহার করবেন না, যেটি খাদ্য হিসেবে গ্রহণযোগ্য নয়৷’ আয়ুর্বেদকে কাজে লাগিয়ে বাড়িয়ে তুলুন আপনার লাবণ্য৷ তিলের তেল…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক [আধুনিক ভারতীয় নারীদের চিন্তাভাবনা - বিবেচনা নিয়ে শুরু হয়েছে বিবিসি হিন্দির বিশেষ ধারাবাহিক প্রতিবেদন 'হার চয়েস।' ১২ জন ভারতীয় নারীর বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা, তাদের আকাঙ্ক্ষা, বিকল্পের সন্ধান - এ সবই উঠে এসেছে তাদের মুখ থেকে। আজ দক্ষিণ ভারতের এক নারীর জীবনকথা। তিনি বলছিলেন একজন নপুংসকের সাথে তার বিয়ের অভিজ্ঞতার কথা। বিবিসি সংবাদদাতা ঐশ্বর্যা রভিশঙ্করের সঙ্গে ওই নারীর কথোপকথনের ভিত্তিতে লেখা এই প্রতিবেদন। তার অনুরোধেই নাম পরিচয় গোপন রাখা হলো।] "সেটা ছিল আমার বিয়ের প্রথম রাত। প্রথমবার কোনো পুরুষের সঙ্গে অন্তরঙ্গ হতে চলেছিলাম আমি। প্রাণের বান্ধবীদের কাছ থেকে শোনা কিছু কথা আর কয়েকটা পর্ন ভিডিও দেখে আমার মনের…
শুক্রবার, 26 জানুয়ারী 2018 19:48

মিশতে হবে বন্ধুর মতো

বেড়ে ওঠার পথে শিশুদের নানা মানসিক সমস্যা হতে পারে। উদ্বিগ্ন না হয়ে, বাবা-মায়ের উচিত বন্ধুর মতো মিশে সমস্যাটি বোঝার। জানাচ্ছেন মনরোগ চিকিৎসক পার্থপ্রতিম দে। প্রশ্ন: শিশুদের মধ্যে উদ্বিগ্নতার লক্ষণ কি স্বাভাবিক? উত্তর: বিষয়টি খতিয়ে দেখা উচিত। অধিকাংশ ক্ষেত্রে বাবা-মা বাচ্চার কথা শুনতে চান না। এই ধরনের আচরণকে বদমায়েসি বলে থাকেন। সেটা ঠিক নয়। এটা এক ধরনের অসুখ। ভবিষ্যতে তা বড় হয়ে দেখা দিতে পারে। প্রশ্ন: এখানে বদমায়েশি বলতে কী বোঝাচ্ছেন? উত্তর: যেমন, বাচ্চা স্কুলে যেতে চায় না। এটা অনেকে বদমায়েসি বলে ভাবেন। কিন্তু সে যে স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে, সেটা বদমায়েশি নাও হতে পারে। এক জায়গায় বসে থাকতে পারছে না,…