10222017রবি
ওয়াশিংটন: মহিলাদের মা হওয়া থেকে বিরত রাখার জন্য একমাত্র কন্ডোমই ভরসা পুরুষের৷ কিন্তু তা সবসময় ব্যবহার করতে পছন্দ করেন না অনেক পুরুষ৷ কন্ডোম ব্যবহার না করেও গর্ভধারনকে রুখতে মহিলাদের খেতে হয় গর্ভনিরোধক ওষুধ৷ কিন্তু অত্যাধিক এই ধরণের ওষুধ পরবর্তীকালে সমস্যা ঘটায় গর্ভধারণে৷ তবে চিন্তার কারণ নেই৷ এবার আরও একটি নয়া পণ্থা আসতে চলেছে বাজারে৷ পুরুষদের জন্যও আসছে গর্ভনিরোধক ওষুধ৷ এই নতুন গর্ভনিরোধক ওষুধের হদিশ দিয়েছেন অ্যারন হ্যামলিন৷ তিনি জানিয়েছেন এই ওষুধটি পুরুষ শরীরে প্রবেশ করে শুক্রানু আসার পথকে বন্ধ করে দেবে৷ তবে অন্যান্য ফ্লুইড বেরোনর পথ খোলা থাকবে৷ ফলে পুরুষের যৌন তৃপ্তিতে কোনও বাধা থাকবে না৷ ওষুধ না নিয়ে ইঞ্জেকশনও…
সমীক্ষায় বলা হয়েছে, ২৭ বছর বয়সে পুরুষরা সব থেকে সপ্রতিভ থাকে, মনের দিক দিয়ে। কোনও বাধা বিঘ্নই তখন তাদের আটকাতে পারে না। ঠিক কোন বয়সে মহিলাদের কাছে ‘বোরিং’ হয়ে যান পুরুষরা কথায় বলে, ‘মেয়েরা কুড়িতেই বুড়ি’! কিন্তু জানেন কি, পুরুষরা কোন বয়সে ‘বুড়ো’ হয়! নাকি বয়স বাড়লেও আকর্ষণ থাকে একই রকম। সমীক্ষা বলছে অন্য কথা। এয়ারবিএনবি নামে একটি ওয়েবসাইট এমনই এক সমীক্ষা চালায় ২০০০ জনকে নিয়ে। সমীক্ষায় বলা হয়েছে, ২৭ বছর বয়সে পুরুষরা সব থেকে সপ্রতিভ থাকে, মনের দিক দিয়ে। কোনও বাধা বিঘ্নই তখন তাদের আটকাতে পারে না। হঠাৎ করেই এরা বেরিয়ে পড়তে পারে ট্রেকিংয়ের উদ্দেশে। বা, থমথমে গুরুগম্ভীর পরিবেশে…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক প্রসূতির মৃত্যু এখনও উন্নয়নশীল দেশগুলোতে বড় সমস্যা। আর এই মৃত্যুর প্রধান একটি কারণ রক্তক্ষরণ। ১৭ বছর আগে সহজ একটি পদ্ধতিতে প্রসূতির রক্তক্ষরণ বন্ধের উপায় বের করেছিলেন বাংলাদেশের প্রথিতযশা চিকিৎসক ডা. সায়েবা আক্তার। ক্যাথেটার দিয়ে একটি কনডম প্রসূতির জরায়ুর ভেতর প্রবেশ করিয়ে তা বাতাস দিয়ে ফুলিয়ে রক্ত বন্ধ করার এই পদ্ধতি এখন বিশ্বের বহু দেশে ব্যবহার করা হচ্ছে। ২০০৩ সালের পর থেকে বিশ্বের অনেক শীর্ষ সারির মেডিক্যাল জার্নালে তার এই গবেষণাপত্রটি ছাপা হয়েছে। বেশ কিছু আন্তর্জাতিক পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি। এই পদ্ধতি নিয়ে ভাষণ এবং প্রশিক্ষণ দিতে তিনি এখন ইন্দোনেশিয়ায় রয়েছেন। ডাক্তার সায়েবা আক্তার জানান, ২০০০ সালে ঢাকা মেডিক্যাল…
বৃহস্পতিবার, 22 জুন 2017 23:11

ঠোঁটে ঝিলমিল লেগে যাবে!

মৃত কোষ ঝরিয়ে ফেলার জন্য শুধু ত্বকেরই নয়, ঠোঁটেরও এক্সফোলিয়েশন প্রয়োজন। অলিভ অয়েল আর চিনি দিয়ে ঠোঁটের জন্য স্ক্রাব বানিয়ে নিতে পারেন। কিংবা নরম ব্রাশ দিয়ে আলতো করে ঘষে নিন ঠোঁটজোড়া। গরমে ত্বকের যত্ন তো নিশ্চয়ই নিয়ম করেই নিচ্ছেন। কিন্তু ঠোঁটের যত্ন নেওয়ার কথা মনে রেখেছেন কি? অনেকেরই ধারণা, কেবল শীতকালেই ঠোঁটের যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। যেহেতু বাতাসে আর্দ্রতার অভাবে সেই সময় ঠোঁট ফাটে বেশি। এই ধারণাটা কিন্তু ঠিক নয়। গরমকালেও ঠোঁটের যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। সুর্যের রশ্মিতে যাতে ঠোঁট ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেটা দেখা দরকার। সে জন্য অবশ্য খুব কিছু পরিশ্রম করতে হবে না। ঘরোয়া টিপ্‌স মানলেই চলবে। মৃত কোষ ঝরিয়ে…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক বউ নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রায় প্রত্যেক পুরুষেরই ফ্যাসিনেশন থাকে৷ বউ হবে স্লিম-ট্রিম রোগা৷তবে সাম্প্রতিক গবেষণায় যা সামনে এসেছে তা শুনলে আপনি চমকে যাবেন৷ গবেষণা বলছে, জীবনে সুখী হতে হলে অবশ্যই মোটা মেয়েদের বিয়ে করা উচিত পুরুষদের৷ গবেষকরা জানিয়েছেন, মোটা মেয়েদের তুলনায় স্বভাবের দিক দিয়ে রোগা মেয়েরা অনেকটাই রিজার্ভড হয়৷ স্বামীর সঙ্গে তারা বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে তুলতেও অনেকটা সময় নেন৷
গরমে ঘামের চোটে ত্বক, চুল ঠিকঠাক রাখতেই হিমশিম খেতে হয়। তার উপর মেক আপ ঠিক রাখা আরও বড় সমস্যা। গরমে বেশি মেক আপ করলে তা ঠিক রাখা যায় না। ঘামে মেক আপ গলে গেলে দেখতে আরও ক্লান্ত লাগে। গরমে তাই মেক আপ করতে হবে খুব সাবধানে। হালকা মেক আপ যা আপনাকে ফ্রেশ রাখবে, আবার গরমে অসুবিধাও হবে না। জেনে নিন গরমে মেক আপ কিট কী কী বদল করবেন। ডার্ক লিপস্টিক, কালার লিপ বাম রাতে কোনও অনুষ্ঠানের জন্য তুলে রাখুন ডার্ক লিপস্টিক। দিনের বেলা কালার লিপ বাম লাগান। এতে দেখতেও সুন্দর লাগবে, ঠোঁট ময়শ্চারাইজডও থাকবে। পছন্দ মতো ফ্রুটি ফ্লেভারের লিপ বাম…
বিয়ের দিন এসেই গেল। গরমে এমনিতেই নাজেহাল অবস্থা। তার মধ্যেই বিয়ের সব দিক সামলে নিজেকেও সুন্দর করে তুলতে হচ্ছে। অনেক কাজ থাকে বলে নখের দিকে বিশেষ নজর দেওয়া হয় না। শেষ দিনের জন্যই এই কাজটা রেখে দেন অনেকেই। আবার অনেকেই এখন বিয়েতে নেল আর্ট করাতে চান। একেবারে শেষ দিনের জন্য না রেখে আগে থেকে কী ভাবে নখের যত্ন নিলে বিয়ের দিন নেল আর্ট সুন্দর হয়ে উঠবে জেনে নিন। কী করবেন যদি নখের কোনও সমস্যা থাকে, যেমন কিউটিকল শক্ত হয়ে যাওয়া, ভাঙা বা ক্ষয়ে নখ, তা হলে বিয়ের ৬-৮ সপ্তাহ আগে স্যাঁলোতে গিয়ে ভাল করে নখ ফাইল করে ম্যানিকিওর করিয়ে নিন।…
গরমকালে রোদের তাপ যেমন ত্বকে জ্বালা ধরায়, তেমনই অতিরিক্ত ঘামের কারণে ত্বকে ধুলো-ময়লাও জমে বেশি। তাই প্রতি দিন ত্বক ভিতর থেকে পরিষ্কার করা জরুরি। জেনে নিন গরমে ত্বক ভিতর থেকে পরিষ্কার করে দূষণমুক্ত রাখার তিনটি মাস্ক। অ্যালয় ভেরা এবং টি ট্রি অয়েল মাস্ক এক কাপ ঘন অ্যালয় ভেরা জুসের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ পুরো মুখে লাগিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। অ্যালয় ভেরা সূর্যের তাপে হওয়া জ্বলন থেকে ত্বক ঠান্ডা করে। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন ত্বকে পুষ্টি জোগায়। ত্বকের যে কোনও ধরনের স্ট্রেস দূর করতে ও দূষণের হাত থেকে রক্ষা করতে উপকারি টি ট্রি অয়েল। অ্যালয়…
হিরের আংটি আবার বাঁকা? বাড়িতে পুত্রসন্তানের জন্ম হলে এমনটা বলেই থাকেন পরিবারের লোকেরা। গায়ের রংটা কালো, মাথায় চুল কম, চেহারার এ সব ঘাটতি দিয়ে কী এসে যায়? হাজার হোক ছেলে তো! ঠিক উল্টোটাই হয়ে থাকে মেয়েদের ক্ষেত্রে। একে মেয়ে, তায় গায়ের রং একটু ‘চাপা’, নাকটা একটু বোঁচা হলে চিন্তায় যেন মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে আত্মীয়স্বজনদের। কী ভাবে বিয়ে হবে এই মেয়ের? সন্তানদের বড় করে তোলার মধ্যেও ছাপ পড়ে এই মানসিকতার। ছেলেদের শেখানোই হয় তোমার গুণই আসল। মেধা আর পকেটের জোরেই জিতে নিতে পারবে মন। তবে মেয়েদের বেলায় কিন্তু পহলে দর্শনধারী, ফির গুণবিচারী। একুশ শতকে পৌঁছেও যে এই ভাবনার পরিবর্তন হয়নি…
সুস্থ থাকার জন্য শরীরে অন্যতম প্রয়োজনীয় উপাদান ভিটামিন সি। এই ভিটামিন যেমন শরীরে দরকারি মিনারেল শোষণে সাহায্য করে, তেমনই ফ্রি র‌্যাডিকাল ড্যামেজ নিয়ন্ত্রণ করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। শরীরে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখা, দাঁত, মাড়ির সুস্থ রাখার মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজও করে ভিটামিন সি। তাই পুরুষদের প্রতি দিন ৯০ মিলিগ্রাম ও মহিলাদের প্রতি দিন ৭৫ মিলিগ্রাম করে ভিটামিন সি খাওয়া উচিত। জেনে নিন কোন কোন খাবারে সবচেয়ে বেশি ভিটামিন সি রয়েছে। প্রতি দিনের ডায়েটে এর মধ্যে থেকে অন্তত দুটো খাবার রাখার চেষ্টা করুন।
মহিলাদের প্রেগন্যান্সি টেস্টের মতোই এ বার পুরুষরাও বাড়িতে বসেই স্পার্ম কাউন্ট করতে পারবেন। এর জন্য চিকিত্সকের কাছে দৌড়তে হবে না। এ কাজে সাহায্য করবে আপনারই স্মার্টফোন। আর এতে গোপনীয়তাও বজায় থাকবে। বিশ্বাস হচ্ছে না তো? কিন্তু এমনটাই দাবি করছেন হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুলের এক দল বিজ্ঞানী। নতুন প্রযুক্তির উপর পরীক্ষাও চালিয়েছেন তাঁরা। তাঁদের দাবি, ৯৮ শতাংশ সঠিক এই টেস্টটি। সময় লাগবে মাত্র পাঁচ সেকেন্ড। আর এর জন্য কোনও প্রশিক্ষণেরও প্রয়োজন হবে না। কী ভাবে এই টেস্টটি হবে? বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, এই টেস্টের জন্য সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার দু’টোরই ব্যবহার হয়েছে। স্পার্ম স্যাম্পল সংগ্রহ করার জন্য একটি ডিসপোজেবল কিট ও চিপের সাহায্য নেওয়া হবে।…