04062020সোম
শিরোনাম:
শুক্রবার, 02 ডিসেম্বর 2016 09:45

সমস্যা সমাধানে তথ্য ও বানিজ্যমন্ত্রীর আশ্বাস

বিনোদন প্রতিবেদক বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন পাচার বন্ধে দেয়া মিডিয়া ইউনিটির সুপারিশ খতিয়ে দেখতে বিটিভির মহাপরিচালককে প্রধান করে কমিটি গঠনের মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। গতকাল সন্ধ্যায় গুলশানের হোটেল সিক্স সিজনস-এ আয়োজিত মিডিয়া ইউনিটির তৃতীয় সংহতি সভায় এ আশ্বাস দেন তিনি। এছাড়া একই সভায় বানিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, বিদেশে বিজ্ঞাপন প্রচারের নামে ৪শ কোটি টাকা চলে যাওয়া মেনে নেয়া যায় না। তিনি এ সময় সমস্যা সমাধানেরও আশ্বাস প্রদান করেন। এ সংহতি সভায় বিজ্ঞাপন ও অর্থ পাচারের সঙ্গে একটি প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণাদি তুলে ধরেন মিডিয়া ইউনিটির নেতৃস্থানীয়রা। এদিকে একই অনুষ্ঠানে টেলিভিশন মিডিয়াকে শিল্প হিসাবে ঘোষণা দিতে সরকার উদ্যোগ নেবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন বানিজ্যমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রী। গতকালের এ সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর উপদেষ্টা ও ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান, এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান, বাংলাভিশনের চেয়ারম্যান আবদুল হক, চ্যানেল টুয়েন্টিফোরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে আজাদ, মিডিয়া ইউনিটির আহবায়ক একাত্তর টিভির প্রধান সম্পাদক মোজাম্মেল হক বাবু, মিডিয়া ইউনিটির সদস্য সচিব দেশটিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাসান আরিফ, ডিরেক্টরস গিল্ডের সভাপতি গাজী রাকায়েত, সাধারণ সম্পাদক এস এ হক অলীক, নাট্যকার সংঘের সভাপতি মাসুম রেজা, টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রোডিউসারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার পাঠান, অভিনয়শিল্পী সংঘের সদস্য সচিব অভিনেতা আহসান হাবিব নাসিমসহ টেলিভিশন মাধ্যমের সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এছাড়া অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শহীদুজ্জামান সেলিম, আজিজুল হাকিম, জাহিদ হাসান ও আরো অনেকে। প্রসঙ্গত, শত প্রতিকূলতার মাঝেও বাংলাদেশের শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে দেশের টিভি চ্যানেলগুলো আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। কিন্তু বিদেশি চ্যানেলের নামে টাকা পাচারের এক অশুভ তৎপরতায় গোটা শিল্পই এখন হুমকির মুখে। অনুমোদন ছাড়া ভারতীয় চ্যানেলের নামে দেশে দীর্ঘদিন ধরে বিদেশি কিছু চ্যানেল ডাউনলিংক হচ্ছে। যেগুলোর ভারতে কোনো প্রদর্শন নেই। পাশাপাশি বিদেশি চ্যানেলে দেশীয় বিজ্ঞাপন প্রচারের ফলে বড় একটি ক্ষতির মুখে ধাবিত হচ্ছে দেশের মিডিয়া। আর সে সঙ্গে বিদেশি সিরিজগুলো একে একে বাংলাদেশের বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচার শুরু হওয়ায় টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রি ধ্বংসের পথেই এগিয়ে যাচ্ছে। এসব নিয়ে দেশের বিনোদনের সবচেয়ে বড় এ মাধ্যমটির সঙ্গে কাজ করা সংশ্লিষ্ট সবাই উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছেন অনেক দিন ধরেই। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। সংকটের কথা সবার মুখেই শোনা গেছে। কিন্তু উত্তরণ নিয়ে এতদিন কেউ এগিয়ে আসেননি। তবে এবার সেই হাল ধরা হয়েছে। টেলিভিশন মাধ্যমের সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্ট সবার একাত্মতায় সম্প্রতি গঠিত হয়েছে ‘মিডিয়া ইউনিটি’ নামের একটি সংগঠন। দেশীয় সংস্কৃতিকে বাঁচাতে গত ৫ই নভেম্বর ঢাকা ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে একাত্তর টিভির প্রধান সম্পাদক মোজাম্মেল হক বাবুকে আহ্বায়ক ও দেশটিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাসান আরিফকে সদস্য সচিব করে এ সংগঠনের যাত্রা শুরু হয়। সেদিনই সে সংবাদ সম্মেলনে দেশীয় সংস্কৃতিতে রক্ষার আহ্বান জানান তারা। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৩ই নভেম্বর একই একই স্থানে দ্বিতীয় এবং গতকাল গুলশানের হোটেল সিক্স সিজনস-এ তৃতীয় সংহতি সভা অনুষ্ঠিত হয়।
পড়া হয়েছে 445 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 02 ডিসেম্বর 2016 09:50