10162019বুধ
শুক্রবার, 27 অক্টোবার 2017 09:54

হারভে আমাকে ধর্ষণ করেছেন

বিনোদন ডেস্ক লন্ডনের একটি হোটেল কক্ষ। অকস্মাৎ ঘরে প্রবেশ করলেন হলিউডের প্রযোজক হারভে উইন্সটেন। ঢুকেই তিনি আমাকে পিছন দিকে ধাক্কাতে লাগলেন। শক্তি প্রয়োগ করলেন আমার ওপর। আমাকে ধর্ষণ করলেন। না, এটা উভয়ের সম্মতিতে দৈহিক মিলন ছিল না। এমন কি তিনি তখন জন্মবিরতিকরণের নিরাপদ ব্যবস্থাও গ্রহণ করেননি। হলিউডের মোঘল হিসেবে পরিচিত হারভে উইন্সটেনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করলেন মডেল ও নায়িকা নাতাসিয়া মালথি (৪৩)। তিনি প্রায় ৫০টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। তার ওপর চালানো যৌন নির্যাতনের বিষয়ে বুধবার সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। নিউ ইয়র্কে অনুষ্ঠিত হয় ওই সংবাদ সম্মেলন। উল্লেখ্য, হলিউড প্রযোজক হারভে উইন্সটেনের বিরুদ্ধে বন্যার পানির মতো যৌন হয়রানির অভিযোগ আসছে। যারা এমন অভিযোগ করছেন তার মধ্যে বেশির ভাগই হলিউডের শীর্ষ স্থানীয় নায়িকা। আছেন অ্যানজেলিনা জোলি, গাইনেথ পালট্রো, নাতাসিয়া মালথিসহ অনেক অনেক নায়িকা, উইন্সটেনের কোম্পানিতে চাকরি করা নারী ও অন্যরা। নাতাসিয়া মালথি বলেছেন, ২০০৮ সালের ঘটনা। সেবার বাফটা পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি লন্ডনের স্যান্ডারসন হোটেলে অবস্থান করছিলেন। সেটা ছিল ১০ই ফেব্রুয়ারি। তার ভাষায়, অনুষ্ঠান শেষে আমি হোটেলের রুমে চলে গেলাম। ঘুমিয়ে পড়লাম ক্লান্তিতে। কিন্তু আমার রুমের দরজায় বারবার নক করার শব্দে জেগে গেলাম। শুনতে পেলাম কেউ একজন বলছেন, দরজা খোলো নাসাসিয়া মালথি। আমি হারভে উইন্সটেন। তার এমন কথায় আমি দরজা খুলে দিই। ভিতরে প্রবেশ করে হারভে উইন্সটেন আলোচনা শুরু করেন। বলেন, আমার আগামী ছবিতে তোমাকে একটি চরিত্র দিতে চাই। এ সময় তিনি ছিলেন অর্ধনগ্ন। আস্তে আস্তে যৌনতা নিয়ে কথা বলতে বলতে তিনি মাস্টারবেট শুরু করেন। এ সময় আমি বসা ছিলাম বিছানার ওপর। কিন্তু তিনি আমাকে আস্তে আস্তে ধাক্কাতে থাকেন। আমার ওপর জোর খাটাতে থাকেন। এক পর্যায়ে তিনি আমাকে ধর্ষণ করেন। এতে আমার কোনো সম্মতি ছিল না। এমন কি তিনি কোনো নিরাপদ ব্যবস্থাও গ্রহণ করেননি। আমি পুরোপুরি ভেঙে পড়েছিলাম। আমার সঙ্গে যখন তিনি শারীরিক মেলামেশা চালাচ্ছিলেন তখন আমি তাকে এতে সহযোগিতা করিনি। চোখ বন্ধ করে আমি শুয়ে ছিলাম। শুধু চাইছিলাম এর ইতি ঘটুক। ওই সময়টা আমি ছিলাম যেন একটি মৃত মানুষ। এরপরে আমি সেখানে পড়ে ছিলাম একরাশ বীতশ্রদ্ধ হয়ে। নাতাসিয়ার এ অভিযোগের তাৎক্ষণিক জবাব পাওয়া যায়নি হারভে উইন্সটেনের কাছ থেকে। তবে এর আগে যেসব অভিযোগ এসেছে, তাকে তিনি একবাক্যে বলে দিয়েছেন মিথ্যা। বলেছেন, যাদেরকে ধর্ষণের অভিযোগ করা হচ্ছে তাদের সঙ্গে সম্মতিতে শারীরিক মেলামেশা করেছেন তিনি। তবে ধর্ষিতারা দাবি করছেন, উভয়ের সম্মতিতে দৈহিক মেলামেশা ছিল না সেসব। নাতাসিয়া দাবি করেছেন, ওই ঘটনার পরের দিন তিনি লস অ্যানজেলেসে ফেরার আগেই একটি ছবির স্ক্রিপ্ট পান। এর মাধ্যমে তাকে অভিভূত করা হয় যে, তিনি পরবর্তী ছবি ‘নাইন’-এ একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র পাচ্ছেন। আর ছবিটি প্রযোজনা করছেন উইন্সটেন। এতে তারকা হিসেবে থাকবেন ডানিয়েল ডে-লুইস, নিকোল কিডম্যান ও জুডি ডেন্স। নাতাসিয়া মালথি দাবি করেন, উইন্সটেন তাকে তার সঙ্গে বেভারলি হিলস পেনিনসুলা হোটেলে সাক্ষাৎ করতে বলেন। বলা হয়েছিল, সেখানে তার একজন সহকারী উপস্থিত থাকবেন। কিন্তু এর পরিবর্তে উইন্সটেন তাকে অন্যত্র সাক্ষাৎ করার আহ্বান জানান, সেখানে উইন্সটেনের সঙ্গে ছিলেন আরেকজন নারী। এতে অস্বীকৃতি জানান নাতাসিয়া। তিনি পরে উইন্সটেনকে বলে দেন, একটি ছবিতে চরিত্র পাওয়ার জন্য এমন মূল্য দেয়ার অর্থ হয় না। এতে উইন্সটেন রেগে যান। তাকে অকথ্য গালি দেন। নাতাসিয়ার ভাষায়, হলিউডে অন্য আরো শক্তিধর ব্যক্তি আমার ওপর যৌন নির্যাতন চালিয়েছে। কিন্তু হারভে উইন্সটেন যতটা খারাপ কাজ করেছে এত বেশি কষ্টদায়ক অভিজ্ঞতা আমি অন্য কারো কাছ থেকে অর্জন করিনি। এ বিষয়ে পুলিশে মামলা হবে কিনা তা নিয়ে কাজ করছেন নাতাসিয়ার আইনজীবী গ্লোরিয়া অলরেড। এ নিয়ে হারভের বিরুদ্ধে কমপক্ষে ৬টি ধর্ষণের অভিযোগ এলো। হারভের বয়স এখন ৬৫ বছর। তিনি লন্ডন, নিউ ইয়র্ক ও লস অ্যানজেলেসে এসব অভিযোগে ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশনের মুখে রয়েছেন।
পড়া হয়েছে 258 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 27 অক্টোবার 2017 10:02