11192018সোম
শুক্রবার, 14 জুলাই 2017 08:48

অবশেষে দর সংশোধন

নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক অবশেষে শেয়ারবাজারে দর সংশোধন হয়েছে। তিন দিন বৃদ্ধির পর বুধবার দেশের দুই শেয়ারবাজারে লেনদেন হওয়া তিন-চতুর্থাংশ কোম্পানির শেয়ারদর কমেছে। এর আগে টানা প্রায় এক মাস ধরে বেড়েছে শেয়ারদর। এ সময়ের ১৯ কার্যদিবসের মধ্যে ১৫ দিনে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ৪২১ পয়েন্ট। বাকি চার দিনে কমেছে ৮১ পয়েন্ট। এর প্রায় অর্ধেকটাই কমেছে গতকাল। গতকাল প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইতে দর হারিয়েছে ৭০ শতাংশেরও বেশি শেয়ার। এর বিপরীতে বেড়েছে ২০ শতাংশের। অপর শেয়ারবাজার সিএসইতে ৭৫ শতাংশেরও বেশি শেয়ারের বাজারদর কমেছে ও বেড়েছে ১৯ শতাংশের। বাকিগুলোর দর অপরিবর্তিত। এর আগের তিন দিনে লেনদেনের প্রথম ঘণ্টার দরবৃদ্ধির পর মূলধন বৃদ্ধিজনিত মুনাফা তুলে নেওয়ার প্রবণতায় দর হ্রাস পেয়েছিল। অবশ্য শেয়ার চাহিদা বেশি থাকার কারণে লেনদেনের শেষ পর্যন্ত প্রতিদিনই ঊর্ধ্বমুখী ধারাতেই লেনদেন শেষ হয়। দর সংশোধনের এ ধারাকে ইতিবাচক বলে মনে করছেন শেয়ারবাজার-সংশ্লিষ্টরা। তারা বলেন, কিছুদিন বৃদ্ধির পর দর সংশোধন না হলে বাজারে ঝুঁকি বাড়ে। দরপতনের শঙ্কাও বেড়ে যায়। এদিকে দর সংশোধনের দিনে বাজার মূল্যসূচক ও শেয়ার কেনাবেচার পরিমাণও উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমেছে। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স প্রায় ৪০ পয়েন্ট হারিয়ে ৫৭৯০ পয়েন্টে নেমেছে। আর সিএসইর সিএসসিএক্স প্রায় ১০১ পয়েন্ট হারিয়ে ১০৮৫১ পয়েন্টে নেমেছে। দুই বাজারে কেনাবেচা হয়েছে ৯৭১ কোটি টাকার শেয়ার, যা মঙ্গলবারের তুলনায় ৪২৬ কোটি টাকা বা সাড়ে ৩০ শতাংশ কম। লেনদেন কমায় ব্যাংক খাতের অবদান ছিল সবচেয়ে বেশি। গতকাল এ খাতের ৩০ কোম্পানির লেনদেন মঙ্গলবারের তুলনায় ১৫৪ কোটি ৭০ লাখ টাকা কমে ১২৯ কোটি ৮৬ লাখ টাকায় নেমেছে। আগের দিন খাতটির লেনদেন ছিল ডিএসইর মোট লেনদেনের সাড়ে ২১ শতাংশেরও বেশি। সেখানে তা গতকাল মোটের সোয়া ১৪ শতাংশেরও নিচে নেমেছে। অবশ্য শুধু ব্যাংক খাতই নয়, গতকাল প্রায় সব খাতের লেনদেনই কমেছে। এর মধ্যে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক খাতের লেনদেন সাড়ে ৫৬ কোটি টাকা কমে ৬৯ কোটি টাকায় নেমেছে। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের লেনদেন ৩০ কোটি ৬০ লাখ টাকা কমে সাড়ে ৭১ কোটি টাকায়, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের লেনদেন সোয়া ২৫ কোটি টাকা কমে পৌনে ৩৭ কোটি টাকায়, প্রকৌশল খাতের ৩৩ কোম্পানির লেনদেন প্রায় ২০ কোটি টাকা কমে ১০০ কোটি টাকারও নিচে নেমেছে। খাতওয়ারি লেনদেনে গতকাল ডিএসইতে বস্ত্র খাতের ৪৮ কোম্পানির ১৭৩ কোটি ৭৬ লাখ টাকার লেনদেন ছিল সর্বাধিক। যদিও এ খাতের লেনদেনও মঙ্গলবারের তুলনায় ১৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা কমেছে। গতকাল পাট খাত ছাড়া অন্য সব খাতের অধিকাংশ শেয়ারের দর কমেছে। ক্লোজিং প্রাইসের হিসাবে ব্যাংক খাতের ২৪টির দর হ্রাসের বিপরীতে মাত্র দুটির দর বেড়েছে। একইভাবে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক খাতের ১৮টির দর হ্রাসের বিপরীতে চারটির, বীমা খাতের ২৮টির দর হ্রাসের বিপরীতে ১৪টির, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের ১৭টির দর হ্রাসের বিপরীতে মাত্র একটির দর বেড়েছে।
পড়া হয়েছে 251 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 14 জুলাই 2017 08:52