11212019বৃহঃ
সোমবার, 04 নভেম্বর 2019 22:33

আবরারের মৃত্যুর ঘটনা প্রথমআলো ধামাচাপা দেয়ায় ক্ষুদ্ধ প্রধানমন্ত্রী

লিখেছেন 
আইটেম রেট করুন
(0 ভোটসমূহ)
ফাইল ফটো ফাইল ফটো
বিশেষ প্রতিনিধি সাময়িকী কিশোর আলোর অনুষ্ঠানে স্কুল ছাত্র নাইমুল আবরার রাহাতের মৃত্যুর ঘটনাটি দৈনিক প্রথম আলো চাঁপা দেওয়ায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মন্ত্রীদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, আপনারা অনেকে বলেন প্রথম আলো নিরপেক্ষ, মানবিক ও বাকস্বাধীনতায় বিশ্বাসী। এই শিশুর মৃত্যুর ঘটনাটি চাপা দিয়ে পত্রিকাটি মানবিকতার কি দেখাল? এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তাঁর তেজগাও কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদের নিয়মিত বৈঠকে এসব বলেছেন বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। বৈঠক অংশ নেয়া একাধিক সিনিয়র মন্ত্রী নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই তথ্য জানিয়েছেন। দৈনিক প্রথম আলোর সাময়িকী কিশোর আলো অনুষ্ঠানে আবরার মৃত্যু প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্কুলের একজন ছাত্র নাইমুল আববার রাহাত বিদ্যুৎপিষ্ট হওয়ার পর তারা (প্রথম আলো) ঘটনাটি আঢ়াল করে ঝাকজমক অনুষ্ঠান চালিয়েছে। এই কিশোরের জীবন বাচানোর ব্যাপারে তাদের কোন জরুরি পদক্ষেপ ছিল না। এই অমানবিক কাজটি প্রথমআলো করলো কিভাবে? তিনি বলেন, ঘটনাস্থলের (ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজ)পাশে অনেকে গুলো বড় বড় হাসপতাল রয়েছে। সেইসব হাসপাতালে আববারকে চিকিৎসা না দিয়ে দূরের মহাখালীতে একটি হাসপাতালে নিয়ে গেছে। মৃত্যুর বিষয়টি ধাপামাচা দিতে তাকে সেখানে নেওয়া হয়েছে। মানবিকতার কান্ডারি দাবিদার প্রথম আলো এতো বড় ঘটনা আড়াল করে পার পেয়ে যাবে তা হতে পারে না। এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রথম আলো বলে ছাড় পাওয়া যাবে না। একটি হদয়বিদারক ঘটনায় প্রথম আলোর আচরণ তুলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজের ছাত্র আবরার। তার ঘটনাটি কলেজ অধ্যক্ষকে পর্যন্ত জানানো প্রয়োজন মনে করেনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই ধরণের ঘটনায় মায়না তদন্ত ছাড়া লাশ দাফনের জন্য পুলিশ হস্তান্তর করল কিভাবে? সেখানে পুলিশ কি করল? এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জান খানকে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। আবরার মৃত্যু ঘটনায় প্রথম আলোর অমানবিক ঘটনাসহ নানা কর্মকান্ড নিয়ে আইনমন্ত্রীসহ সকল মন্ত্রী নিন্দা জানিয়ে বক্তব্য রেখেছেন। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারেও মত দিয়েছেন বলে জানা গেছে। আবরার মৃত্যুতে শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ-বিক্ষোভের মধ্যে একটি তদন্ত কমিটি করেছে ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। আবরারের মৃত্যুকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোক ও নিন্দা অব্যাহত রয়েছে। মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণেশ গোপাল বিশ্বাস জানান, আবরারের মৃত্যুতে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।
পড়া হয়েছে 15 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: সোমবার, 04 নভেম্বর 2019 23:30