12102018সোম
বৃহস্পতিবার, 06 এপ্রিল 2017 09:14

শাকিলার কোলে ঠাঁই পেল 'একুশ'

নিঃসন্তান চিকিৎসকপত্নী শাকিলা আক্তারের কোলে ঠাঁই পেয়েছে চট্টগ্রামে ডাস্টবিনে কুড়িয়ে পাওয়া সেই নবজাতক ‘একুশ’। নিঃসন্তান চিকিৎসকপত্নী শাকিলা আক্তারের কোলে ঠাঁই পেয়েছে চট্টগ্রামে ডাস্টবিনে কুড়িয়ে পাওয়া সেই নবজাতক ‘একুশ’।
বুধবার চট্টগ্রামের বিশেষ শিশু আদালত ও প্রথম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ জান্নাতুল ফেরদৌসের আদালত ডা. জাকিরুল ইসলাম ও শাকিলা দম্পতির কাছে একুশকে হস্তান্তর করেন। এর আগে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী শিশুটির নামে ১০ লাখ টাকার শিক্ষাবীমা কাগজপত্র জমা দেন এই দম্পতি। আদালতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নবজাতক বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. দেবাশীষ চৌধুরী একুশকে তার জিম্মা থেকে ওই দম্পতির হাতে তুলে দেন। শাকিলার কোলে ঠাঁই পেল 'একুশ' আদালতে ডা. জাকিরুল ইসলাম ও শাকিলা দম্পতির হাতে একুশকে তুলে দেওয়া হয়- সমকাল গত ২৯ মার্চ চার দফা শর্ত জুড়ে দিয়ে নিঃসন্তান থাকা শাকিলার জিম্মায় একুশকে দেওয়ার আদেশ দেন আদালত। এ প্রসঙ্গে শিশু আদালতের পিপি এমএ ফয়েজ সমকালকে বলেন, ‘শিক্ষাবীমা জমা দেওয়ায় আদালতের নির্দেশে শিশু একুশকে ডা. জাকিরুল-শাকিলা দম্পতির জিম্মায় বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।’ শিশু একুশকে জিম্মায় নিয়ে ১৬ জন নারী ও পুরুষ আদালতে আবেদন করেছিলেন। তিনজন অনুপস্থিত থাকায় ১৩ জনের শুনানি গ্রহণ করেন আদালত। এদের মধ্যে ৮ জনই নিঃসন্তান ছিলেন। গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টার দিকে নগরীর কর্নেলহাট এলাকার লাইফ কেয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টার সংলগ্ন ডাস্টবিনে নবজাতকটিক দেখতে পান ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী। পরে তারা পুলিশকে খবর দিলে একুশকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। একুশের রাতে উদ্ধার হওয়ায় আকবর শাহ থানার ওসি আলমগীর মাহমুদ তার নাম রাখেন ‘একুশ’। পুলিশ একুশের মায়ের নাম বের করতে পারলেও তার পূর্ণ ঠিকানা এখনো বের করতে পারেনি। এ ঘটনায় পুলিশ অবৈধ গর্ভপাত ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে একুশের মা লিপি আক্তারের বিরুদ্ধে অজ্ঞাত ঠিকানা দেখিয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
পড়া হয়েছে 379 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: বৃহস্পতিবার, 06 এপ্রিল 2017 09:39