12122019বৃহঃ
শিরোনাম:
বৃহস্পতিবার, 29 সেপ্টেম্বর 2016 08:25

প্রাইম মুভার ট্রেইলর ধর্মঘট: জাহাজ জট রফতানি কার্যক্রম বন্ধ

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা কন্টেইনারবাহী প্রাইম মুভার ও ট্রেইলর শ্রমিক-মালিক ঐক্য পরিষদের ধর্মঘটের কারণে চট্টগ্রাম বন্দর অচলাবস্থার দিকে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনার ও জাহাজ জটের সৃষ্টি হয়েছে। অপরদিকে রপ্তানিমুখী কন্টেইনার না পাওয়ায় অনেকগুলো জাহাজ আংশিক কন্টেইনার নিয়ে বন্দর ছেড়ে গেছে। অনেকগুলো রপ্তানি পণ্যবাহী কন্টেইনারের জন্য নির্দিষ্ট সময়ের অতিরিক্ত সময় জেটিতে অপেক্ষা করছে। দেশের প্রধান প্রবেশ দ্বার চট্টগ্রাম বন্দর হওয়ায় রপ্তানি কার্যক্রম বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। সড়ক পরিবহন ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয় এবং প্রাইমমুভার ট্রেইলর শ্রমিক-মালিক ঐক্য পরিষদের অনঢ় অবস্থানের কারণে আমদানি ও রপ্তানির ক্ষেত্রে মারাত্মক বিপর্যয়ের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। বন্দরের বহির্নোঙরে ২৪টি জাহাজ জেটিতে আসার জন্য অপেক্ষা করছে। এর মধ্যে ১৮টি জাহাজ কন্টেইনারবাহী জেটিসমূহে বর্তমানে ১৫টি জাহাজ রয়েছে যার মধ্যে ১১টি কন্টেইনারবাহী। চট্টগ্রাম বন্দরে বর্তমানে পণ্যবাহী ও খালি সব মিলিয়ে গতকাল বুধবার পর্যন্ত ৩৮ হাজার ৩১৬টি কন্টেইনার রয়েছে— যা বন্দরের ধারণক্ষমতার বেশি। বন্দরের কন্টেইনার ধারণক্ষমতা ৩৬ হাজার ৩৫৭। এর মধ্যে এফসিএল (ফুল কন্টেইনার লোডেড) রয়েছে ২৭ হাজার ৭০৩টি। প্রাইম মুভার ট্রেইলর ঐক্য পরিষদ বন্দর কর্তৃপক্ষের অনুরোধে গত মঙ্গলবার রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত বেসরকারি কন্টেইনার ডিপো থেকে রপ্তানিমুখি কন্টেইনার পরিবহন করে। এতে করে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ১৫শ কন্টেইনার পৌঁছায় এবং ৫টি জাহাজ ওই সকল কন্টেইনার নিয়ে জেটি ছেড়ে যায়। কিন্তু গতকাল বুধবার সকাল থেকে আবার প্রাইমমুভার ধর্মঘট শুরু হলে কোনো রপ্তানিমুখি কন্টেইনার বন্দরে আসেনি। চট্টগ্রাম বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) গোলাম ছরওয়ার জানান, প্রতিদিন অন্তত ২ হাজার রপ্তানিমুখি কন্টেইনার বন্দরে আসে। তিনি জানান, প্রাইমমুভার ধর্মঘট চলতে থাকলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বন্দরে ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। প্রাইমমুভার ধর্মঘটের কারণে বন্দরের ৩ হাজার ৭৫০ কন্টেইনার বেসরকারি ডিপোতে যেতে পারছে না। একইভাবে বেসরকারি ডিপোতে ৫ হাজার ৭২০টি কন্টেইনার আটকা পড়েছে। এগুলোর অধিকাংশই রপ্তানি পণ্যবাহী কন্টেইনার। আমদানি ও রপ্তানি পণ্যের শতকরা ৯০ ভাগ সড়কপথে প্রাইমমুভার ও ট্রেইলরের মাধ্যমে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে পৌঁছায়। মাত্র ১০ ভাগ কন্টেইনার রেলপথে ঢাকা আইসিডিতে পৌঁছানো হয়। বিজিএমইএ’র সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান জানান, আকস্মিকভাবে প্রাইমমুভার ধর্মঘটের কারণে তাদের সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। বিশেষ করে রপ্তানিমুখি গার্মেন্টসপণ্য ধর্মঘটের কারণে আটকা পড়েছে। একইভাবে গার্মেন্টসের কাঁচামালও বন্দর থেকে কারখানায় পৌঁছানো সম্ভব হচ্ছে না। তিনি বলেন, তাদের পণ্যবাহী কন্টেইনার এতো বেশি ওজনের হয় না। তারা ভারি পণ্য পরিবহনকারীদের কারণে আটকা পড়েছেন। তিনি ধর্মঘট প্রত্যাহারে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। প্রাইমমুভার ও ট্রেইলর শ্রমিক-মালিক ঐক্য পরিষদের সদস্যসচিব আবু বকর সিদ্দিক জানান, তাদের আন্দোলন আরো তীব্র হচ্ছে। কাভার্ড ভ্যান শ্রমিক-মালিকগণও যোগ দিচ্ছে। তিনি জানান, গতকাল বুধবার তারা চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহারের সাথে সাক্ষাত্ করেছেন। কমিশনার সরকারের উচ্চপর্যায়ে আলোচনা করেছেন। কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি। তিনি বলেন, সরকারের অযৌক্তিক দাবি প্রত্যাহার করা না হলে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।
পড়া হয়েছে 659 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: বৃহস্পতিবার, 29 সেপ্টেম্বর 2016 08:31