08242019শনি
মঙ্গলবার, 19 ডিসেম্বর 2017 11:35

আদালতে খালেদা জিয়া

নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক জিয়া অরফানেজ ও চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির দুই মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে পৌঁছেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে আদালতে পৌঁছেন তিনি। এর আগে সকাল ১০টায় আদালতের উদ্দেশে রওনা দেন বিএনপি চেয়ারপারসন। পুরান ঢাকার বকশিবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী ঢাকার পাঁচ নম্বর বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামানের আদালতে এ দুটি মামলার বিচার কাজ চলছে। মামলা দুটির মধ্যে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদার আত্মপক্ষ সমর্থনে লিখিত বক্তব্য ও অপর আসামিদের সাফাই সাক্ষ্যের জন্য এবং জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য দিন ধার্য রয়েছে। গত ৫ ডিসেম্বর অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থন করে দেওয়া…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা বিধির গেজেট বিষয়ে আদেশের দিন ধার্য করা হয়েছে ২ জানুয়ারি ২০১৮। আজ বুধবার দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন। সোমবার বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রকাশ করে সরকার। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা বলেছেন, একজন বিচারপতি না থাকায় নিম্ন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট বিষয়ে আদেশ দেওয়া সম্ভব হল না। আগামী ২ জানুয়ারি এ বিষয়ে আদেশ দেয়া হবে। এর আগে ১১ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত গেজেট জারি করা হয়। বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা ও আচরণ বিধিমালার গেজেট প্রকাশে সরকারকে আজ বুধবার পর্যন্ত সময় বেঁধে…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, দফতরে বিচারকদের আচরণ বিধির গেজেট প্রকাশ করায় সুপ্রিম কোর্টের ক্ষমতা ক্ষুণ্ন করা হয়নি বরং কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। ‘বিচারিক আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলা ও আচরণ বিধিমালায় বিচার বিভাগের অধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে কি-না সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এই শৃঙ্খলাবিধির কারণে বিচার বিভাগের অধিকার ক্ষুণ্ন হয়নি বরং বেড়েছে। সংবিধান অনুযায়ী নিম্ন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলা বিধিতে যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে তাতে উচ্চ আদালতের মর্যাদা বেড়েছে। যারা সমালোচনা করেছেন তারা গেজেট না বুঝে, না পড়েই সমালোচনা করেছেন।’ আইনমন্ত্রী আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে বিচারকদের আচরণ বিধির গেজেট প্রকাশের পর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানে যান্ত্রিক ক্রুটির ঘটনায় দায়ের করা মামলার এজাহারভুক্ত ১১ আসামির বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি। তাদেরকে অব্যাহতি প্রদানের সুপারিশ করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে এই প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা সিটিটিসির পরিদর্শক মাহবুবুল আলম। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২৭ নভেম্বর হাঙ্গেরি যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৭৭ বিমান যান্ত্রিক ক্রুটির কারণে তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশখাবাতে জরুরি অবতরণ করে। ক্রুটি মেরামত করে সেখানে চার ঘণ্টা অনির্ধারিত যাত্রাবিরতির পর ওই উড়োজাহাজেই প্রধানমন্ত্রী বুদাপেস্টে পৌঁছান।
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক তারেক রহমানের তৎকালীন রাজনৈতিক কার্যালয় রাজধানীর বনানীর হাওয়া ভবন ও বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের তৎকালীন উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুর সরকারি বাসভবনে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার ষড়যন্ত্র হয়। রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী আবু হেনা মো. ইউসুফের দেয়া জবানবন্দির আলোকে আজ যুক্তিতর্কে এ কথা তুলে ধরা হয়। রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌঁসুলি অ্যাডভোকেট সৈয়দ রেজাউর রহমান ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় আজ ১৫ তম দিনের মতো যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। রাজধানীর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশে স্থাপিত ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিনের আদালতে এ মামলার বিচার চলছে। মামলার কার্যক্রম আগামী ৫ ডিসেম্বর…
নিউজ ফ্ল্যাশ ডেস্ক পিলখানায় ৫৭ সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জনকে হত্যার দায়ে ১৩৯ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। এছাড়া যাবজ্জীবন দেওয়া হয়েছে ১৮৫ জনকে। আর ১৯৬ জনের বিভিন্ন মেয়াদের সাজা দেওয়া হয়েছে। খালাস দেওয়া হয়েছে ৪৯ জনকে। আজ সোমবার বিচারপতি মো. শওকত হোসেনের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার এই রায় ঘোষণা করে। ২০০৯ সালের ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকার পিলখানায় বিডিআর সদরদপ্তরে বিদ্রোহের ঘটনায় ৫৭ সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জন মারা যান। পিলখানা হত্যা মামলার রায়ে পর্যবেক্ষণ পড়া শেষে সাজার আদেশ ঘোষণা করে হাইকোর্ট। আজ সোমবার বেলা আড়াইটা থেকে রায়ের আদেশের অংশ পড়া শুরু করে। বিজিবি (সাবেক বিডিআর) সদর দফতর পিলখানায়…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক সেনা ও বিডিআরে বিরোধ সৃষ্টি ছিল বিদ্রোহের লক্ষ্য ‘বিডিআর বিদ্রোহের মূল লক্ষ্য ছিলো বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বিডিআরকে সাংঘর্ষিক অবস্থানে দাঁড় করানো। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন নবনির্বাচিত একটি গণতান্ত্রিক সরকারকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির মধ্যে নিপতিত করা। এছাড়া সেনা কর্মকর্তাদের জিম্মি করে যে কোন মূল্যে তাদের দাবি আদায় করা। বাহিনীর চেইন অব কমান্ড ধ্বংস করে এই সুশৃঙ্খল বাহিনীকে অকার্যকর করা। প্রয়োজনে সেনা কর্মকর্তাদের নৃশংসভাবে নির্যাতন ও হত্যার মাধ্যমে ভবিষ্যতে সেনা কর্মকর্তাদের বিডিআরে প্রেষণে কাজ করতে নিরুত্সাহিত করা। দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা নষ্ট করা। বর্হি:বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করা এবং জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে দেশের অংশগ্রহণ…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক বহুল আলোচিত বিডিআর বিদ্রোহ হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের সাজা কার্যকরের অনুমোদন চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন এবং খালাস চেয়ে আসামিদের করা আপিলের রায় ঘোষণা হবে আজ রোববার। এর আগে মামলায় নিম্ন আদালতের রায়ের সব ডেথ রেফারেন্স ও ফৌজদারি আপিলের ওপর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত এপ্রিল বিচারপতি মো. শওকত হোসেন, বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকী ও বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের বিশেষ বেঞ্চ আপিলটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখেন। এর আগে বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের ১৮ জানুয়ারি হাইকোর্টে শুনানি শুরু হয়। আপিলে রাষ্ট্রপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছিলেন, বিডিআর বিদ্রোহে সংঘটিত হত্যাকাণ্ড…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক প্রধান বিচারপতির পদ বেশি দিন শূন্য থাকবে না বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেছেন, প্রধান বিচারপতি নিয়োগের বিষয়টি রাষ্ট্রপতির এখতিয়ারে। তিনি যখন নিয়োগ দেবেন, তখনই প্রধান বিচারপতি নিয়োগপ্রাপ্ত হবেন। এ ব্যাপারে তার কোনো এখতিয়ার নেই এবং এ বিষয়ে তিনি কিছু বলতেও পারবেন না। তবে আইনমন্ত্রী মনে করেন, রাষ্ট্রপতি প্র্রধান বিচারপতির পদটি বেশি দিন খালি রাখবেন না। বৃহস্পতিবার রাজধানীর কলেজ রোডে বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট মিলতায়নে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এবং সমপর্যায়ের বিচারকদের প্রশিক্ষণ কোর্সের একটি অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। অধিবেশনে…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক চিকিৎসা খরচ পরিশোধজনিত ব্যর্থতার কারণে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া ব্যক্তির লাশ কোনো ক্লিনিক বা হাসপাতাল জিম্মি করে রাখতে পারবে না বলে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে অসচ্ছল রোগীদের বিল পরিশোধে তহবিল গঠনে স্বাস্থ্য সচিব ও অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রতি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সোমবার বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ সংক্রান্ত রুল নিষ্পত্তি করে এ রায় দেন। রায়ে কয়েকটি নির্দেশনা দেওয়া হয়। 'নবজাতকের লাশ হাসপাতালে রেখে চলে গেলেন বাবা-মা' শিরোনামে ২০১২ সালের ১০ জুন একটি জাতীয় দৈনিকে খবর প্রকাশিত হয়। চিকিৎসা খরচ পরিশোধ করতে না পারায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লাশ…
নিউজ ফ্ল্যাশ প্রতিবেদক অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খখলা ও আচরণ বিধিমালার গেজেট প্রকাশ নিয়ে সরকারের সঙ্গে আড়াই বছর ধরে চলমান 'মতপার্থক্য' নিরসন হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেছেন, 'বিচারকদের চাকরি ও শৃঙখলা বিধিমালা নিয়ে আর কোনো মতপার্থক্য নেই। রাষ্ট্রপতির অনুমোদন পাওয়া গেলে শিগগিরই বিধিমালার গেজেট প্রকাশ করা হবে।' বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় রাজধানীর কাকরাইলে জাজেস কমপ্লেক্সে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্‌হাব মিঞার বাসভবনের সামনে সাংবাদিকদের আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে রাত ৮টা থেকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ বিচারপতির সঙ্গে আইনমন্ত্রীর বৈঠক হয়। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির বাসভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ…