04062020সোম
শিরোনাম:
শুক্রবার, 31 জুলাই 2015 00:15

ক্ষমতা বিকেন্দ্রীকরণের জন্য প্রস্তিুতি নিতে ডিসিদের বললেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রশাসন বিকেন্দ্রীকরণের পক্ষে কথা বলেছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। আর প্রধানমন্ত্রীও চান প্রশাসন বিকেন্দ্রীকরণ করতে। বৃহস্পতিবার তিনদিনব্যাপী জেলা প্রশাসক সম্মেলন শেষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশরারাফ হোসাইন ভূইঞা। জনপ্রশাসনমন্ত্রী কী কথা বলেছেন জেলা প্রশাসকদের উদ্দেশে এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, হাসিমুখে চমৎকার বলেছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী। আমার ব্যক্তিগতভাবে খুবই ভালো লেগেছে। সচিব বলেন, আমরা এতেদিন ধরে যে ইস্যুগুলো প্রমোট করার চেষ্টা করেছি, তিনি তা একধাপ এগিয়েই বলেছেন। ব্যক্তিগতভাবে আমি অনুপ্রাণিত। মোশরারাফ হোসাইন বলেন, জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম কয়েকটি বিষয়ে গুরুত্ব দিয়েছেন। এর মধ্যে একটি বিষয় হচ্ছে বিকেন্দ্রীকরণ। এখন বিকেন্দ্রীকরণ তো পলিসি ইস্যু। কতটুকু ক্ষমতা বিকেন্দ্রীকরণ করা হবে, এটা রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। প্রধানমন্ত্রীও বিকেন্দ্রীকরণ চান। বিকেন্দ্রীকরণ জটিল একটি বিষয় মনে করিয়ে দিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, তবে একটি বিষয় মনে রাখতে হবে, চাইলেই রাতারাতি বিকেন্দ্রীকরণ করা যায় না। এর একটি বড় দিক, স্থানীয় সরকারগুলো শক্তিশালী করা। উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, আপনি যদি অস্ত্র চালাতে না পারেন, আর যদি এই মুহূর্তে অস্ত্র দিয়ে দেই, তাহলে কি চালাতে পারবেন? যদি প্রশিক্ষণ না থাকে, পারবেন না। ক্ষমতা দিয়ে দিলেই সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োগ করা যায় না। তার জন্য প্রস্তুতিও প্রয়োজন। দক্ষ জনবল, সম্পদ, রিসোর্স মবিলাইজেনের সুযোগ থাকতে হয় এবং সুযোগ থাকলেও সেই সুযোগের ব্যবহার করার সামর্থ্যের প্রয়োজন হয়। কাজেই বিকেন্দ্রীকরণ নিয়ে ভালো একটি দিক-নির্দেশনা পেয়েছি। জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফের নির্দেশনা তুলে ধরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বিকেন্দ্রীকরণ হচ্ছে, রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক। তিনি বলেন, স্থানীয় সরকার শক্তিশালী করা হলে সেটা রাজনৈতিক বিকেন্দ্রীকরণ। আর যদি স্থানীয় পর্যায়ের অফিসগুলোকে আরো ক্ষমতা ও দায়িত্ব দেওয়া হয়, তাহলে সেটা প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণ। এই বিষয়টি গুরুত্ব দিয়েছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী। সচিব বলেন, আমাদের মানসিক প্রস্তুতি দরকার। যদি ব্যুরোক্রেসির মানসিকতা না থাকে, তাহলে সরকার চাইলেই বিকেন্দ্রীকরণ হবে না। এটি জনপ্রশাসন মন্ত্রীর ভালো মেসেজ। জনপ্রশাসনমন্ত্রীর দক্ষতার প্রশংসা করে তিনি বলেন, আরো একটি মেসেজ তিনি (সৈয়দ আশরাফ) দিয়েছেন- বিশেষায়িত জ্ঞান, দক্ষতা, সংস্কারমূলক কাজ, প্রশাসনিক দক্ষতা ও কর্মসূচিতে বিশেষ দক্ষতা অর্জন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, অনেকটাই সম্ভব দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে। বিশেষায়িত ক্ষেত্রগুলোতে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এবং সেই ক্ষেত্রে কাজ করলেই ভালো করবেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আমি বলবো, আমাদের অনেক উন্নতি হয়েছে
পড়া হয়েছে 674 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: শুক্রবার, 31 জুলাই 2015 00:21

এ বিভাগের সর্বশেষ সংবাদ

ফেসবুক-এ আমরা