11122019মঙ্গল
রবিবার, 28 এপ্রিল 2019 18:14

সচিবদের গাড়ি কেনার ঋণের সার্ভিস চার্জ লাগবে ১ শতাংশ

বিশেষ প্রতিনিধি সরকারি কর্মকর্তাদের গাড়ি কেনার জন্য সুদমুক্ত এককালীন ৩০ লাখ টাকা ঋণের ওপর এক শতাংশ হারে সার্ভিস চার্জ নির্ধারণ করেছে সরকার। গত ২৫ এপ্রিল অর্থ বিভাগের নির্দেশনায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের গাড়ি সেবা শাখা এই সার্ভিস চার্জ নির্ধারণ করে আদেশ জারি করেছে। এর ফলে প্রধিকারপ্রাপ্ত কর্মকর্মকর্তাদের (সচিব, অতিরিক্ত সচিব, যুগ্ম-সচিব ও উপসচিব) গাড়ি কেনার জন্য সুদমুক্ত ৩০ লাখ টাকার ঋণ নিতে ৩০ হাজার টাকা সার্ভিস চার্জ দিতে হবে। সরকারি আদেশে বলা হয়েছে, ‘প্রাধিকারপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের সুদমুক্ত বিশেষ অগ্রিম এবং গাড়ি সেবা নগদায়ন নীতিমালা, ২০১৮ (সংশোধিত)’ অনুযায়ী প্রধিকারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের গাড়ি কেনা এবং এর আনুষঙ্গিক অন্যান্য খরচাদি যেমন রেজিস্ট্রেশন, ফিটনেস, ট্যাক্স টোকেন ইত্যাদি সকল খরচ নির্বাহের জন্য এককালীন সুদমুক্ত ঋণ বাবদ ৩০ লাখ টাকা নির্ধারণ করা হল। এ সুদমুক্ত ঋণ সুবিধা গ্রহণের ক্ষেত্রে ১ শতাংশ সার্ভিস চার্জ দিতে হবে। এতে অর্থ বিভাগের নির্দেশনা রয়েছে।’ গাড়ি কেনার ঋণ ছাড়াও প্রাধিকারপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তারা গাড়ির রক্ষণাবেক্ষণ, তেল খরচ ও চালকের বেতন বাবদ মাসে ৫০ হাজার টাকা করে পাবেন। প্রাধিকারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে যুগ্ম-সচিব, অতিরিক্ত সচিব এবং সচিবদের ধরা হলেও ২০১৭ সালের জুনে উপসচিবদেরও সরকারি গাড়ি ব্যবহারের দিক থেকে প্রাধিকারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ঘোষণা করা হয়। ২০১৭ সালের ২৫ অগাস্ট ‘প্রাধিকারপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের সুদমুক্ত বিশেষ অগ্রিম এবং গাড়িসেবা নগদায়ন নীতিমালা, ২০১৭ (সংশোধিত)’ প্রণয়ন করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ওই নীতিমালা অনুযায়ী, গাড়ি কেনার জন্য ঋণ পেতে হলে সরকারি কর্মকর্তাকে আগে সার্বক্ষণিক গাড়ি ব্যবহারের প্রাধিকারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হতে হবে। চাকরিজীবনে একবারই সর্বোচ্চ ৩০ লাখ টাকা ঋণ পাওয়া যাবে, যা সর্বোচ্চ ১২০টি সমান কিস্তিতে শোধ করা যাবে। ঋণ নেওয়ার পর প্রতি মাসের বেতন থেকে সরকার কিস্তির টাকা কেটে রাখবে। চাকরির মেয়াদকালে সব টাকা আদায় না হলে তা সংশ্লষ্টি কর্মকর্তার গ্র্যাচুইটি বা পেনশনের টাকা থেকে তা কেটে রাখা হবে।
পড়া হয়েছে 161 বার। সর্বশেষ সম্পাদন করা হয়েছে: রবিবার, 28 এপ্রিল 2019 18:24